ওজনে কম দেওয়ায় চালের গোডাউনে তালা

মঙ্গলবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৮ | ৬:০২ অপরাহ্ণ |

ওজনে কম দেওয়ায় চালের গোডাউনে তালা
প্রতীকী ছবি

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে দরিদ্রদের জন্য সরকারের দেওয়া ১০ টাকার কেজি চাল বিক্রয়ে ওজনে কম দেওয়ার অভিযোগে ডিলারের গোডাউনে তালা লাগিয়ে দিয়েছে ভুক্তভোগিরা। সোমবার বিকেল সাড়ে তিন টার দিকে উপজেলার রিশিকুল ইউনিয়নে চাল ডিলারের গোডাউনে এই ঘটনা ঘটে।

আজ মঙ্গলবার সকালে রিশিকুল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও রিশিকুল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম টুলুর হস্তক্ষেপে ওজনে কম দেওয়ার বিষয়টি ভুল স্বীকার করে পুনরায় তালা খুলে গোডাউনে চাল বিক্রয় শুরু হয়।

রিশিকুল ইউনিয়নের আলোকছত্র গ্রামের ১০ টাকার কেজি চাল ক্রেতা আলাল উদ্দীন বলেন, এই ইউনিয়নে সাবেক যুবলীগ সভাপতি জিল্লার রহমান ডিলার নিয়োগ ছিলেন। তার মৃত্যুর পর স্ত্রী জোসনারা ডিলার নিয়োগ হয়। জোসনারা ২ ওয়ার্ড এর যুবলীগ সভাপতি মুক্তারকে দিয়ে চাল বিক্রির কাজ চালিয়ে আসছিলেন।

চলতি বছরের মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহ হতে চাল বিক্রির শুরুর পর হতেই মুক্তার আলী উপকার ভোগীদের মাঝে মাথাপিছু প্রতি মাসে ৩০ কেজি চাল দেওয়ার নিয়ম থাকলেও তিন থেকে চার কেজি কম দিয়ে আসছিলেন। গত সোমবার ক্রেতারা একজোট হতে ওজনে কম দেওয়ার প্রতিবাদে মুক্তার আলীর থেকে চাবি কেড়ে নিয়ে চালের গোডাউনে তালা লাগিয়ে দেন। ফলে ওই এলকার পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে উঠে। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম টুলু ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উপকার ভোগীদের কে গোডাউনের তালা খুলে দিতে বলেন। যদি খুলে না দেওয়া হয় তবে সরকারি চাল বিক্রির কাজে বাধা প্রদানের জন্য পুলিশ এসে আটক করবে বলে ভয় দেখালে উপকার ভোগী ও স্থানীয় প্রায় ৫ শাতাধিকেরও বেশী লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন। ফলে উত্তেজনা বিরাজ করতে থাকে। পরে চাল ডিলার জোসনারা ও তার প্রতিনিধি মুক্তার আলী ওজনে কম দেওয়ার বিষয়টি ভুল স্বীকার করে আর কোনদিন কম দেওয়া হবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিলে পুনরায় চাল বিক্রয় শুরু হয়।

ওই এলাকার উপকার ভোগী ইমদাদুলসহ অন্যান্য উপকার ভোগীরা দাবি জানান, আগে হতেই মুক্তার আলী আমাদেরকে ৩০ কেজি চালের বিপরিতে ৩ হতে ৪ কেজি কম দিয়ে আসছে । আমরা তার ডিলার শিপ বাতিল চাই এবং খাদ্য অধিদপ্তরের বন্তায় চাল দেওয়ার দাবি জানান। আর যদি না হয় তাহলে পুনরায় আমরা চাল বিক্রি বন্ধ করে দেবেন বলে হুশিয়ারি দেন।

চাল ডিলার জোসনার প্রতিনিধি মুক্তার আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ওজনে কম দেওয়ার কথাটি স্বীকার করে বলেন, সোমবার বিকেলে ৮ হতে ১০ জনের কাছে কম চাল গেছে দাঁড়ি পাল্লর ত্রুটি থাকার কারণে। তবে গোডাউনে তালা লাগার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করে বলেন এক নেতার নির্দেশে আমি তালা লাগিয়ে দেয়।

রিশিকুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম টুলু বলেন, চাল বিক্রয়ে একটু সমস্য হয়ে ছিলেন আমি তা মিমাংসা করে দিয়ে পুনরায় চাল বিক্রয় শুরু হয়েছে। সার্বিক বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে কথা বলে কিভাবে চাল বিক্রয় ভাল করা যাই তা সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শ্রী বিকাশ চন্দ্র বলেন, চাল ওজনে কম দেওয়ার বিষয়টি শুনেছি। ঘটনা স্থলে গিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।#

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

ইবিতে টাংগাইল জেলা সমিতির সভাপতি রেজাউল সম্পাদক জাকিয়া সুলতানা সেতু

কলেজপাড়া,মাজার রোড,ঠাকুরগাঁও-৫১০০, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

Development by: webnewsdesign.com