রাবির ফোকলোর বিভাগ

ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ৩:০১ অপরাহ্ণ |

ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি
এ বিষয়ে সোমবার বিকেল পাঁচটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাত করা হবে। আমাদের সমস্যাগুলো তুলে ধরব বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের কাছে। সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদের দাবি থাকবে।

গ্যালারী কক্ষ ফিরে পাওয়াসহ চার দফা দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে বলে হুশিয়ারি দেয় শিক্ষার্থীরা।

সোমবার দুপুর ১টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ভবনে অবস্থিত বিভাগের সভাপতি কক্ষের সামনে তারা অবস্থান কর্মসূচি পালন করে।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো, ১২১ নম্বর গ্যালারী কক্ষ ফিরিয়ে দিতে হবে, শিক্ষকদের লাঞ্ছনাকারীদের বিচার, শিক্ষিকা ও ছাত্রীদের সঙ্গে উত্ত্যক্তের বিচারসহ অপহরণের হুমকিতে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রত্যেকটি বিভাগেই একটি করে গ্যালারী কক্ষ রয়েছে। কিন্তু আমাদের গ্যালারী কক্ষটা ইতিহাস বিভাগের দখলে। ওই বিভাগের শিক্ষার্থীরা আমাদের বিভাগের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করে আসছে। ক্লাস চলার সময় উচ্চ শব্দ করে। এতে ক্লাস করতে সমস্যা হয়। আবার নিষেধ করতে গেলে মারধরের হুমকি দেয়। তাই এসব সমস্যা সমাধানের একমাত্র উপায় আমাদের বিভাগে থেকে ইতিহাস বিভাগকে আলাদা করতে হবে। এসময় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস বর্জনসহ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুশিয়ারি দেয় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

অভিযোগের বিষয়ে ইতিহাস বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সম্রাট বলেন, সব অভিযোগ সত্য নয়। মেয়েদের কোনো উত্ত্যক্ত করা হয় নি। যেসব অভিযোগ করেছে সব মিথ্যা ও বানোয়াট। আমাদের বিভাগে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি ও ক্লাস সংকট। তাই আমাদের দাবি থাকবে আমরা যেন ১২১ নম্বর কক্ষটিতে পুনরায় ক্লাস করার সুযোগ পাই।

ফোকলোর বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফারজানা রহমান অভিযোগ করে বলেন, ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা ১২১ নম্বর ক্লাস কক্ষের সামনে জটলা পাকিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। যার কারণে চলাফেরা করতে সমস্যা হয়। ছাত্রীদের অশালীন মন্তব্য করে। এই বিভাগের দুজন শিক্ষিকাসহ ছাত্রীদেরও উত্ত্যক্ত করে।

সার্বিক বিষয়ে ফোকলোর বিভাগের সভাপতি আখতার হোসেন বলেন, ফোকলোর বিভাগ প্রথম যখন ঈসমাইল হোসেন সিরাজী ভবনে আসে তখন আমরা আমরা একসঙ্গে গ্যালারী কক্ষসহ চারটি কক্ষই পেয়েছিলাম। কিন্তু ২০০৯ সালে ইতিহাস বিভাগের ক্লাস সংকট থাকার কারণে ইতিহাস বিভাগকে প্রসাশন কর্তৃপক্ষ কক্ষটি বরাদ্দ দেয়। কিন্তু সমস্যার মূল কারণ হলো ১২০ ও ১২২ নম্বর কক্ষটি আমাদের কিন্তু ১২১ নম্বর কক্ষটি ইতিহাস বিভাগের। যার কারণে ক্লাস নিতে আমাদের অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তাই উপচার্য স্যারকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন এই সমস্যার সুষ্ঠু সমাধান হবে।

তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে সোমবার বিকেল পাঁচটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাত করা হবে। আমাদের সমস্যাগুলো তুলে ধরব বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের কাছে। সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদের দাবি থাকবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য আনন্দ কুমার সাহার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

কোটা সংস্কার অান্দোলনকারীদের ইফতার প্রোগ্রাম ২৫ মে

কলেজপাড়া,মাজার রোড,ঠাকুরগাঁও-৫১০০, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

Development by: webnewsdesign.com