পঞ্চগড়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম…

রবিবার, ২৮ জুলাই ২০১৯ | ৫:৪৯ অপরাহ্ণ |

পঞ্চগড়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম…
প্রতিনিধির পাঠানো তথ্য ও ছবিতে ডেস্ক রিপোর্ট

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার মির্জা গোলাম হাফিজ দ্বি মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদে নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম ও নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে।

চলতি বছরের ১০ই ফেব্রুয়ারীতে শূন্য পদে প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। পরে জেলা শিক্ষা অফিসারের
স্বাক্ষরিত গত ১৮ই জুলাই মহাপরিচালক কতৃক প্রতিনিধি মনোনয়ন অভিযোগের ভিত্তিতে মির্জা গোলাম হাফিজ দ্বি মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ পরিক্ষা স্থগিত করা হলেও কোন নিয়ম ছাড়াই তড়ি-ঘড়ি করে স্থগিত আদেশ অমান্য করে তেতুলিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার পারভীন আক্তার বানু, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, ইউসুফ আলী, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম ও প্রধান শিক্ষক পদে আবেদনকারী বর্তমান সহকারী প্রধান শিক্ষিকা
জাহানারা বেগমের যোগস‚ত্রে সাজানো নিয়োগ পরিক্ষার আয়োজন করে এবং লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মাত্র দুজন প্রার্থী ।


জানা যায়, গত বছরের শেষের দিকে প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক মোস্তান আলী অবসরে গেলে ভারপ্রাপ্ত হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন প্রধান শিক্ষক শূন্য পদে আবেদনকারী বর্তমান সহকারী প্রধান শিক্ষিকা জাহানারা বেগম। কিন্তু মহাপরিচালক প্রতিনিধি নিয়োগদানের অভিযোগ উঠলে নিয়োগ পরিক্ষা স্থগিত ও প্রধান শিক্ষক পদে জাহানারা বেগম প্রার্থী হলে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব
পায় বিদ্যালয়ের শরীর চর্চা শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম।

প্রধান শিক্ষক পদের নিয়োগ পরিচালনা কমিটির তথ্যমতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক পদে মোট ০৯ জন প্রার্থী আবেদন করলেও গত বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) গোপন নিয়োগ পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে মাত্র ২ জন। তারা হলেন ওই বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষিকা জাহানারা বেগম ও বশির আলম। এ দুজন প্রার্থী ছাড়া অন্যান্যরা হলেন, আঃ হামিদ, আব্দুর রাজ্জাক, আঃ হালিম, ইদ্রিস আলী,তাহেরুল ইসলাম, আশরাফুল ইসলাম প্রামানিক ও ওমর আলী।

এদিকে গত ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকালে কাজী সাহাবুদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজে জেলা শিক্ষা অফিসারে স্থগিত আদেশ তোয়াক্কা না করে মাত্র ২ জন প্রার্থী দিয়ে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হয় বাকী ৭ জন প্রার্থী অনুপস্থিত এ খবর শুনা মাত্রই বিভিন্ন গনমাধ্যম কর্মীদের বিষয়টি অবগত করলে অভিযোগের ভিত্তিতে গন মাধ্যম কর্মীরা পরিক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করে এবং পুনঃনিয়োগের বিষয়ে জানতে ও নিয়োগ পরিক্ষার আদেশের কপি দেখতে চাইলে তা দেখাতে ব্যর্থ হয় এবং পরিক্ষার কেন্দ্র
থেকে দ্রুত বের হয়ে যায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার পারভীন আক্তার বানু, মহাপরিচালকের প্রতিনিধি ও পঞ্চগড় সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রেখা রানী ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম।

এদিকে প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ পরীক্ষা দিতে আসা বশির আলমকে পরীক্ষা আবেদন সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোন পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ দেখে আবেদন করেছেন এবং কোন ব্যাংকে টাকা ব্যাংক ড্রাফট করেছে তা তিনি নিজেও জানেন না। তিনি জানান, আমি পরীক্ষা দিতে গেছি জাহানারা আপার জন্য তিনি আমার আবেদনের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। তার কথায় আমিও আবেদন করেছি এবং পরীক্ষায় অংশ নিয়েছি।

প্রধান শিক্ষক পদে আঃ হালিম নামে এক আবেদনকারী প্রতিবেদককে জানান,#৩৯;আবেদন করছি আমরা মোট ৯ জন অথচ গোপনে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে আর পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে মাত্র ২জন বাকী ৭জন আমরা জানি না পরীক্ষার হয়েছে। আমাদের জানানো হয়নি । ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ শেষ হবে ২৮ জুলাই তাই নিয়োগ বানিজ্য আর সিন্ডিকেট করে তাড়াতাড়ি করে নিয়োগ প্রদান করা হচ্ছে। আমরাও চাই পরিক্ষায় মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া হোক এবং সেই পরীক্ষায় আমরাও সবাই অংশগ্রহন
করবো।

এ দিকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম প্রধান শিক্ষক পদে পুনঃ নিয়োগের আদেশ কপি বিদ্যালয়ে আছে এমন দাবী করলে ২৭ জুলাই শনিবার বিদ্যালয়ে গেলে দীর্ঘক্ষণ ধরে বিভিন্ন অভিনয় করে এবং অবশেষে তিনিও পুনঃ নিয়োগের আদেশের কপি দেখাতে ব্যর্থ হন এবং রেখা রানীর কাছে স্বাক্ষর নিবেন এমন ব্যস্ততা দেখিয়ে বিদ্যালয় থেকে চলে যান।

এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার পারভীন আক্তার বানু,মহা পরিচালেেক প্রতিনিধি রেখা রানী ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইউসুফ আলীর সাথে একাধিকবার মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

জেলা শিক্ষা অফিসার হিমাংশু কুমার রায় সিংহ জানান, শিক্ষক পদের নিয়োগের লিখিত পরিক্ষায় সর্বনিম্ন ৩ জন প্রার্থীর উপস্থিতি বাধ্যতামূলক। দুই জন প্রার্থী পরিক্ষায় অংশ নিয়েছে এটা গ্রহণ যোগ্য নয়। আমি খবর পেয়েছি এবং বিষয়টি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার পারভীন আক্তার বানুকে দেখার দায়িত্ব দিয়েছি। তারপরও ম্যানেজিং কমিটি যদি অবৈধ ভাবে নিয়োগ দেয় তাহলে কখনো বোর্ড তার নিয়োগ গ্রহণ করবে না।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments



ঠাকুরগাঁওয়ে পুকুরে বিষ দিয়ে মাছ নিধন,,,

প্রধান কার্যালয়ঃ বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com