বালিয়াডাঙ্গীতে মেধাবী ছাত্রীর করুণ পরিস্থিতি, সাহায্য চেয়েছেন নিঃস দিন মজুর বাবা।

শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ৬:৪৬ অপরাহ্ণ |

বালিয়াডাঙ্গীতে মেধাবী ছাত্রীর করুণ পরিস্থিতি, সাহায্য চেয়েছেন নিঃস দিন মজুর বাবা।
বালিয়াডাঙ্গীতে মেধাবী ছাত্রীর করুণ পরিস্থিতি

ছোট মেয়ে হিসেবে স্বপ্ন ছিল পড়ালেখা শেষে দিনমজুর বাবার দু:খ দুর করার। এসএসসি পরীক্ষা শেষ করে মাধ্যমিকের গন্ডিটা পেরিয়ে এ বছর কলেজে পড়ালেখার পাশাপাশি টিউশনি করিয়ে বাবার বোঝাটা একটু হলেও কমানোর চেষ্টা করবো। অসহায় মা নিজে না খেয়ে তার ভাগেরটা আমার পাতে তুলে দেয়, তার কষ্টের দিন দুর করবো। কিন্তু কষ্টের বোঝা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে এই রোগ। দিন দিন যেন বাবা-মায়ের আরও বোঝা বেড়েই চলেছে। পাশে থাকার শেষ আশ্রয়স্থল একমাত্র ভাই সেও রোগের চিকিৎসার ভয়ে বউ নিয়ে ঢাকায় চলে গেছে, কোন খোজ খবর নিচ্ছে না। ২ বছর ধরে চিকিৎসা করে সর্বশান্ত হয়ে পড়েছে বাবা-মা। শেষ ভরসা হারিয়ে কাঁদতে কাঁদতে কথাগুলো বলছি ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নের বামুনিয়া(হাজীপাড়া) গ্রামের মেধাবী ছাত্রী আতোয়ারা আক্তার (১৬) নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। সে দেরেম আলী নামে এক দিনমজুরের ছোট মেয়ে এবং মাছখুড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থী। গত ২ বছর ধরে আতোয়ারার মেরুদন্ডের হাড় বেড়ে গিয়ে বাকা হয়ে যাচ্ছে পিঠ। ডাক্তারী পরীক্ষার রিপোর্ট বলছে স্বাভাবিক অবস্থার চেয়ে আতোয়ারার পিঠের মেরুদন্ড .৭০ বেড়ে গেছে। যা বাকা হয়ে পিঠের বাম পার্শ্বে দিন দিন চলে যাচ্ছে। আর সেই ব্যথায় ধীরে ধীরে মৃত্যু পথযাত্রী হচ্ছে মেধাবী ছাত্রী আতোয়ারা। আতোয়ারার বাবা দেরেম আলী কান্নাজড়িত কন্ঠে জানায়, গত দুই বছর ধরে ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, রংপুর ও ঢাকায় চিকিৎসা করে নি:স আমি। বাংলাদেশ স্পাইন ও আর্থপেডিক জেনারেল হাসপাতাল, ঢাকার স্পাইন ও আর্থপেডিক সার্জন ডা: মো: শাহ আলম বলেছেন অপারেশন করলেই সম্পূর্ণ সুস্থ্য হবেন। কিন্তু সেই অপারেশন করতে প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন, যা আমার পক্ষে যোগাড় করা কোনভাবেই সম্ভব নয়। চিকিৎসার অভাবে মেয়ের কষ্ট দেখে নিজেকে পৃথিবীতে বড় বোঝা বলে মনে হচ্ছে আমার। আতোয়ারার মা সহিদা বেগম বলেন, বড় মেয়ের বিয়ে দেওয়ার পর শেষ ভরসা ছিল আমার ছেলে। বিয়ের পর রোগের কথা শুনে সে তার বউ নিয়ে ঢাকায় চলে গেছে আমাদের ছেড়ে। কোন যোগাযোগ করছে না। পাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আহসান হাবিব বুলবুল বলেন, মেয়ের বাবা অত্যন্ত গরীব, মেয়েটির চিকিৎসার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার অনুরোধ করেন তিনি। মেয়ের অপারেশনের খরচ যোগাড় করতে আর্থিক সাহায্য চেয়েছেন আতোয়ারা, তার মা ও দিন মজুর বাবা। আতোয়ারাকে সহযোগিতা পাঠানো ও যোগাযোগ করুন ০১৭৭০৮৮২৬৭০-বিকাশ ও ডাচ বাংলা-০১৭৭০৮৮২৬৭০+৫ (পার্সোনাল) এই নম্বরে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

বালিয়াডাঙ্গীতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশনে নির্যাতনের  স্বিকার প্রেমিকা

কলেজপাড়া,মাজার রোড,ঠাকুরগাঁও-৫১০০, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

Development by: webnewsdesign.com