“অচেনা মেয়ে”

শুক্রবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৩:০৮ অপরাহ্ণ |

“অচেনা মেয়ে”
"অচেনা মেয়ে"-সাইফুর রহমান তাসিম.

সাহিত্য ভাণ্ডার: ☹সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে যখন আকাশের দিকে তাকায় তখন দেখতে পায় আকাশে মেঘ করেছে। আকাশ মুখ কালো করাতে মনটা বিষন্ন হয়ে গেল কিন্তু হঠাৎ শুরু হলো বৃষ্টি। আকাশ থেকে তার সব কষ্ট ঝরে পড়তে দেকে মনটা যে পুলকের আবেশে ভরে গেল এটা কোন ঝুট কথা নাই।

💚কালো ছাতাটা আর বইখাতা নিয়ে যখন বৃষ্টির রিমঝিম শদ্ব উপভোগ করতে করতে যখন কলেজের দিকে যাচ্ছিলাম মাঝ পথে ‘এই তাসিম ‘ডাক শুনতে পায়।যখন পেছনে তাকায় তখন দেখতে পায় একটি মেয়ে। মেয়েটির বয়স পনের কিংবা ষোল। সর্বাঙ্গে তার নবচাঞ্চলতা বিরাজমান। সে যে বাংলা মায়ের স্বর্ণকিশোরী তা তার ডাক শুনে বুঝতে পায়।

webnewsdesign.com

তার টোঠগুলো ছিল লাল লিপস্টিকের আবরণে ডাকা।সেই যখন আমার দিকে তাকিয়ে হেস দিল মনে হল যেন কায়েমদের বাগানে মুষ্টিবদ্ধ হয়ে থাকা টুকটুকে লাল গোলাপটি আমার দিকে তাকিয়ে তার পাপড়িগুললো মেলে দিল। তার চোখের চাওনিটা ছিল অজস্র।তার চোখ দিয় তার হৃদয় প্রদীপের আলোকরশ্মি বিচ্ছুরিত হচ্ছিল।সেই যেন কিছু বলতে চাচ্ছিল আমায়।

তখন শুধায় আমি তারে’ওগো অচেনা মেয়ে, দুপা ফেলে চোখের পলক না পড়তে,এক নিমিষে কোথায় থেকে তুমি এলে। সেই বলল আমিতো তোমার পেছনে আসছিলাম অথচ আমি জানিনা,নাজানাটা স্বাভাবিক আমিতো তখন আমাকে নিয়ে ভাবতেছিলাম ধূসরের পান্ডলিপিতে রচিত এই সামন্য পুজির জীবন দিয়ে কী হবে।সৃষ্টিকর্তা বোধহয় সেই সময় তাকে পাঠিয়েছিল আমার হৃদয়ে লিখিত হতশার বাক্যগুলোকে মুছে দিতে। তারপর তার সাথে ভাব করলাম।

ভাব করতে করতে তার দিকে যখন তাকায় মনে হল কদম রসুল সমুদ্র সৈকতের একটি বালির মাঠের লাল কাকড়া বুঝি আমার চোখের সামনে দিয়ে সৌন্দর্য বিস্তার করতে করতে হেঁটে চলেছে। কলেজের পটকে এসে দুজন আলাদা হয়ে যায়। মেকি কথা যদি না বলি সেই যে আমার সাদা হৃদয়ে রঙ দিয়ে গেল,আমার অমৃত হিয়ার উষার মরুভূমিতে সেই যেন আনন্দের স্রোতধারা বয়ে দিল।

💚দুই দিনে পরে শুনি সেই অন্য একটি কলেজে চলে গেছে।তার এই কথাটি শুনে মনে হল সেই হয়তো ভেবেছে আমাকে কুয়াশাচ্ছন্ন ভোরভেলার শিশির ফোটাটির মতো ক্ষণস্তায়ী কিন্তু আমিতো তাকে ভেবেছি আমার জীবনে সূর্যের মতো ধ্রুব।

💚আর এখন যখন একান্ত নিরিবিলিতে আবেগে আপ্লুত হয়ে তার কথা ভাবি তখন দেখতে তার টুল পড়া হাসির দৃশ্য,শুনতে পায় তার হিহি হাসির শদ্ব। বাশির কিশোর শ্রীকৃষ্ণ যেমন তার বাশির সুর দিয়ে যেমন রাধাকে ডাকত,সেই বুঝি আমায় ডাকছে,তার বোধন বাশিতে বুঝি আমার জন্য সুর উঠেছে,না হলে কেন ‘এই তাসিম ‘শদ্বগুচ্ছ আমার বারবার মনে পড়ছে।

💚সেও কি সোনালি বিকেল বেলা পুকুর ঘাটে বসে আমার কথা ভাবনে,তখন কী তার বাম হাতটা মুখে রাখে না,তখন কী তার মুখে চিন্তার চাপ পড়ে না,তখন কী বাতাসে তার এলোচুল গুলো কি উড়ে না।

 

অচেনা মেয়ে-

লিখেছেন- চট্রগ্রাম থেকে সাইফুর রহমান তাসিম

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com