“একজন সংবাদকর্মীর জীবন-যাপন”

বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০ | ৬:৪২ অপরাহ্ণ |

“একজন সংবাদকর্মীর জীবন-যাপন”
প্রতিনিধির পাঠানো তথ্য ও ছবিতে ডেস্ক রিপোর্ট

আসুন জেনে নেই একজন পেশাদার সংবাদকর্মী”র প্রতিদিনের পরিশ্রম…
সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে সংবাদ সংগ্রহ করতে যায়, সারাদিন সংবাদ সংগ্রহ করে। কোথায় গোসল? কোথায় ভাত ? কোথায় রেস্ট ?

সন্ধ্যার পর ল্যাপটপে বসে তারপর নিউজ ভালোভাবে এডিট করেন। সংবাদটি লিখেন, তারপর বাছাই করে কোথাও ভুল আছে কিনা। ভুল থাকলে সংশোধন করা। এর ফাঁকে যদি আবার শুনা যায় একটি দূর্ঘটনা কিংবা কোথাও কোন সমস্যা হয়েছে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌছানো।


আরো জেনে নেই…
একটি সংবাদ করতে গেলে কত জন লোকের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন হয় ?
প্রথমে বাদীর কথা, তারপর বিবাদীর কথা, তারপর এলাকাবাসির কথা. তারপর চেয়ারম্যান/ মেম্বার-জনপ্রতিনিধির কথা, তারপর প্রশাসনের কথা। এই সংবাদ তৈরি করতে কতজন লোকের নিকট যেতে হয় আর কতটা কষ্ট অনুভব করা যায়। প্রত্যেক লোকের কাছে আলাদা আলাদাভাবে কথা বলে জানতে হয় বিষয়টির সম্পর্কে। এতে সময় কতটুকু প্রয়োজন ?

আবার কখনো সংবাদটি পরিবেশন এর পর আসে হুমকি ধামকি এমনকি হতে পারে মামলাও। এখানে আমার প্রশ্ন এগুলো কি শুধুই তার নিজের স্বার্থের জন্য না মানুষের স্বার্থের জন্য ?

বর্তমানে যে কোন পেশার লোকের সর্বনিম্ন বেতন কমপক্ষে ১২০০০ থেকে ১৮০০০ হাজার টাকা,
আর একজন সংবাদকর্মী সামান্য কিছু বেতন পেয়ে থাকে তা পকেট খরচ হিসেবে। এই বেতন দিয়ে কি পরিবার চলে ?

এরমধ্যে যদি কেউ মনে করেন ঘুষ খায় !
আসেন ঘুষের সম্পর্কে জেনে নেই, গ্রামগঞ্জের সংবাদ টাকা তো দুরের কথা একগ্লাস পানিও পায় না।
আসুন শহরের সংবাদ সরকারি অফিস আদালতের দূর্নীতি ধরা পড়লো এখানে আসলো কোন ক্ষমতাসীন ব্যক্তির ফোন বা হুমকি সে আমার লোক।

এরমধ্যে কেউ যদি বলেন তাহলে চলে কিভাবে ? একজন সাংবাদিকের কাছে কি প্রতিদিন দূর্নীতির তথ্য আসে ? আসতে পারে প্রতিমাসে একটি আবার দুইমাস পরেও একটি কিন্তু তা প্রচার করবে কিভাবে তথ্য সংগ্রহ করতে যাওয়ার আগেই কোন বড় ধরনের ব্যক্তির ফোনে আতংকিত হয়ে যায়। তাহলে এতকষ্ট করার পর কেন সাংবাদিকেরা বেতন পাচ্ছেননা ? ভাতা পাচ্ছেনা ?

সাংবাদিকরা তো রাষ্ট্রের ৪র্থ স্তম্ভ। একজন শ্রমিক যদি প্রতিমাসে বেতন পেতে পারেন তাহলে একজন সাংবাদিক পাবে না কেন ?

পরিশেষ, কোন সংবাদ-কর্মী টাকার আশায় সাংবাদিকতা না, সম্মান আর মানুষের ভালোবাসার জন্য সাংবাদিকতা করেন। সত্য ঘটনা তুলে ধরা, অসহায় মানুষের কথা বলাই সাংবাদিকের দায়িত্ব।

দেশে যে সরকার ক্ষমতায় আসুক উন্নয়নের কথা কারা তুলে ধরেন বিশ্বের কাছে সাংবাদিক না অন্যরা। দেশের প্রতিটা কাজেই সাংবাদিকদের অবদান রয়েছে এবং আছে থাকবে যতদিন পৃথিবী আছে। কিছু লোকের মুখে মাঝে মাঝে শুনতে পাই সাংবাদিকেরা চাঁদাবাজি করে।

এটা সম্পর্কে একটু জানি, কোন ব্যক্তি অপকর্ম করলে ১হাজার টাকার উপরে কেউ ঘুষ দেয় না। তার আগেও নেতাদের হাত ধরে ফেলেন।

আর সাংবাদিকরা তো আপনাদের মতো গরিব অসহায়সহ সকল শ্রেনী পেশার মানুষের কথা তুলে ধরেন। যখনি দেখেন কেউ খুশি হয়ে পাচঁ টাকা পকেটে মধ্যে ভরে দিচ্ছেন, তখনি বলেন সাংবাদিক চাদাঁবাজি করছে অথচ যেটা পাওয়ার কথা ছিলোনা সাংবাদিকদের জন্যই সেটা ফিরিয়ে পেয়েছে।

আর যারা দূর্নীতি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তাদেরকে কিছু বলতে পারছেন না। তাদেরকে বলবেনইবা কিভাবে, তারা তো অনেক বড় লোক আছে প্রচুর টাকা ও গুন্ডা বাহিনী তাই তাদের সাথে যুদ্ধ করে পারবেন না। আর সাংবাদিক তো কোন গুন্ডা নয়, তাই যা ইচ্ছে তাই বললেও সমস্যা নাই !!

একজন সংবাদকর্মী কতটা কষ্ট করে তা অনেকেই অনুভব করেননা। রোদ, পঁচা পানি,ঝড়-বৃষ্টি মাথায় নিয়ে  ২৪ ঘন্টাই ছুটে চলা।

কোন লোককে জীবনে দেখছেন কোমড় সমান পযর্ন্ত পানিতে নেমে অসহায় মানুষের কথা তুলে ধরতে ?
সবাই এসির রুমে বসে বাতাস গ্রহণ করছে আর সাংবাদিক কনকনে শীতেও পঁচা পানিতে নেমে সাঁতার কেটে সংবাদ সংগ্রহ করছে শুধু তাই নয় বিভিন্ন মারামারি দাঙ্গা-হাঙ্গামার মাঝে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খবর সংগ্রহ করে থাকেন।

অনেক সময় রাজনীতির হিংসা প্রতিহিংসার নিউজ করতে গিয়ে সাহসী সাংবাদিকের জীবনও দিতে হয়, যেমন- সাগর রুনির মতো অসংখ্য সৎসাহসী সাংবাদিককে জীবন দিতে হয়েছে !

দুংখের বিষয় হলেও সত্যি এই যে, যে সাংবাদিক কলমের লিখনিতে অসহায় নির্যাতিত মানুষের অধিকার পাইয়ে দেয়, বিচার পাইয়ে  দেয়, অথচ এই দেশে সাংবাদিক খুন হলে বিচার হয়না !!

একবারো কি ভেবে দেখেছেন, সত্যিকার একজন সৎসাহসী সাংবাদিকের জীবন কতটা রিস্কি ? আসুন সাংবাদিকদের ভালোবাসি, তাদের পাশে থেকে সংবাদ সংগ্রহে সহযোগিতা করি ।

পরিশেষে মাননীয় সরকারের কাছে আমাদের আকুল আবেদন এইযে, সাংবাদিক এই দেশের বিবেক, অসহায় নির্যাতিত মানুষদের প্রাণ ! তাই সাংবাদিকদের তালিকা প্রনয়ন করে পেশাদার সাংবাদিকদের জন্য সরকারী বেতন ভাতার জোর দাবী জানাচ্ছি।

সুমন ভট্টাচার্য
(সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী)

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments



ঠাকুরগাঁওয়ে করোনা মোকাবিলায় পুলিশের ভূমিকায় সন্তুষ্ট মানুষ…

প্রধান কার্যালয়ঃ বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com