কৃত্রিম সংকটে সবজির বাজারে আগুন

শনিবার, ১৯ মে ২০১৮ | ৮:৪৮ অপরাহ্ণ |

কৃত্রিম সংকটে সবজির বাজারে আগুন

রাজশাহী প্রতিনিধি: চাহিদা বেশি থাকায় কৃত্রিম সংকট করে দাম বৃদ্ধি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। তবে বিক্রেতাদের দাবি, টানা বৃষ্টিতে আবাদে সবজি চাষ কম, চাহিদা বেশি থাকার কারণে দাম বেশি।

পবিত্র মাহে রমজানের শুরুতেই রাজশাহীতে সবজির বাজারে আগুন। হটাৎ করে দাম বৃদ্ধিতে সাধারণ ক্রেতারা হতভম্ব। রমজান মাসের প্রথম দিনেই কয়েকটি সবজির দাম অস্বভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে।

webnewsdesign.com

বিক্রেতারা বলছেন, টানা বৃষ্টিতে আবাদ ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় কমে গেছে সবজির সরবরাহ। তাই রোজায় সবজির চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম বেড়েছে। তবে এক সপ্তাহের মধ্যে দাম কমার সম্ভাবনা রয়েছে বলে দাবি বিক্রেতারদের। অন্যদিকে, ক্রেতারা বলছেন, রমজান মাসের প্রথম দিনে মধ্যস্বত্ত্বভোগিদের কারসাজির কারণে দাম বেড়েছে।

রাজশাহী মহানগরী ও উপকন্ঠের বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খুচরা বিক্রেতারা প্রতিকেজি আলু ১৪ থেকে ২০, বেগুন ৫০/৬০, পটল ৪০, শশা ৫০ থেকে ৬০, পেঁয়াজ দেশি ৪২, ভারতীয় ৩০, বিভিন্ন রকম শাক ২০ থেকে ২৫, পেঁপে ২৫ থেকে ৩৫, মিষ্টি কুমড়া ২৫, করোলা ৭০ থেকে ৮০, প্রতিটি লাউ-কুমড়া ৩০, প্রতি হালি কলা ২০ থেকে ২৫, লেবু ২০ থেকে ৩০, প্রতিকেজি আদা ৮০, রসুন ৬০, সজিনা ৯০, ঢেঁড়স ৪০, কাঁচা মরিচ ৬০, কাকরোল ৮০, তরই ৪৫ টাকায় বিক্রি করেছে।

এদিকে রাজশাহীতে মুরগির সরবরাহ ছিল কম। সন্ধ্যার পরে বাজারে ব্রয়লার মুরগি শেষ হয়ে যায়। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে বিভিন্ন মুরগির দাম। বিক্রেতারা বলছেন, খামারে মুরগি না থাকায় সরবরাহ কমে গেছে। আর এসময় চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম বেড়েছে। ক্রেতারা বলছেন, চাহিদার দিকে লক্ষ্য রেখে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে মুরগির দাম বাড়ানো হয়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ২০ থেকে ৪০ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকায়, লেয়ার ১৮০, সোনালী ২৮০ থেকে ৩১০ এবং দেশি ৩৯০ থেকে ৪২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এই দাম আরো বৃদ্ধি পাবে বলে জানান বিক্রেতারা। এদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে গরু-খাসির মাংসের দামও বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিকেজি গরুর মাংস ৪৫০ থেকে ৪৬০, খাসির মাংস ৬শ থেকে ৭শ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতি হালি সাদাডিম ২৩, লালডিম ২৬ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

প্রতিকেজি ছোটমাছ রকম ভেদে ১শ থেকে ৫শ, রুই-কাতলা ১৫০ থেকে ২৮০, সিলভার কার্প ৯০ থেকে ১২০, পাংগাস ৯০ থেকে ১৩০, ইলিশ রকমভেদে ৬শ থেকে ৯শ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

এদিকে চাল বাজারে নতুন আসতে শুরু করায় দাম নিম্নমুখী রয়েছে। সাহেব বাজারের খুচরা চাল বিক্রেতারা প্রতিকেজি হাইব্রীড চাল ৩৬, গুটিস্বর্ণা ৩৬ থেকে ৪০, এলসি চাল ৩৮ থেকে ৪২, পারিজা/ স্বর্ণা ৪২/৪৪, আটাশ চাল ৫০ থেকে ৫৫, মিনিকেট ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিকেজি আটা খোলা ২৫/২৬ এবং প্যাকেট আটা ৩০/৩১ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া বাজারে টিসিবির কয়েকটি পণ্য থাকায় এই পণ্যগুলোর দাম বৃদ্ধি পায়নি। সয়াবিন তেল (খোলা) প্রতি লিটার ৮৫ টাকা, বোতলজাত ১০৩ থেকে ১০৫ টাকা, প্রতিকেজি মসুর ডাল বড়দানা ৬০, ছোটদানা ৮৫, মুগডাল বড়দানা ৮০, ছোটদানা ১৫০, ছোলার ডাল ৯০, ছোলা ৬৫ থেকে ৮০, এংকর ডাল ৩৫ এবং চিনি ৫৬/৫৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

ঠাকুরগাঁওয়ে ভূমিহীনদের ভূমি ও গৃহ প্রদান উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com