তবে কি বাবার ইয়াবা ব্যবসার বলি হলেন তাসপিয়া

শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ | ২:৫০ অপরাহ্ণ |

তবে কি বাবার ইয়াবা ব্যবসার বলি হলেন তাসপিয়া
ছবি: অনলাইন

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা চ্ট্টগ্রামের ইয়াবা ব্যবসায়ীর তালিকায় তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন ও চাচা নুরুল আমিনের নাম রয়েছে। এ প্রেক্ষিতে ইয়াবা ব্যবসার বিরোধ নিয়ে তাসফিয়াকে হত্যা করা হয়েছে কিনা সে বিষয়টিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।
তবে তাসপিয়ার বাবার দাবি, আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ধামাচাপা দিতেই ইয়াবা ব্যবসার বিষয়টিকে সামনে আনা হচ্ছে। তিনি বলেন, টেকনাফের সবার নাম ওই তালিকায় আছে। কেউ ইয়াবা ব্যবসা করে, কেউ করে না।
সোমবার বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি মেয়ের হত্যার সাথে তৃতীয় কোনো পক্ষের ইন্ধন রয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন। লিখিত বক্তব্যে মোহাম্মদ আমিন বলেন, তাসপিয়াকে কিছু চিহ্নিত নরপশু মধ্যযুগীয় কায়দায় নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। এ হত্যাকাণ্ডে তৃতীয় কোনো পক্ষের ইন্ধন আছে কি না তা খতিয়ে দেখার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করছি।
হত্যার রহস্য উদঘাটনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে মোহাম্মদ আমিন বলেন, আপনি তো বুঝেন প্রিয়জন হারানোর বেদনা কতটা অবর্ণনীয়।
এদিকে হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দিতে ইয়াবা ব্যবসার বিষয়টি সামনে আনা হয়েছে মোহাম্মদ আমিনের এমন অভি

যোগের বিষয়ে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের কর্ণফূলী জোনের সহকারি কমিশনার জাহেদুল ইসলাম বলেন, মামলার তদন্তের স্বার্থে আমরা সব দিক খতিয়ে দেখছি।
উল্লেখ্য, গত ২ মে স্থানীয়রা পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে একটি লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ সৈকত এলাকার ১৮ নম্বর ব্রিজের উত্তর পাশে পাথরের ওপর উপুড় হয়ে পড়ে থাকা অজ্ঞাত লাশটি উদ্ধার করে। পরে স্বজনরা লাশটি তাসপিয়ার বলে শনাক্ত করেন।
সুরতহাল রিপের্টে মরদেহের এক চোখ উপড়ে ফেলা, অপর চোখ নষ্ট করে দেয়া ছাড়াও নাক-মুখ থেঁতলানো, পিঠ, বুক এবং নিতম্বে নির্যাতনের ছাপ পেয়েছে পুলিশ। তার বুকের মাঝেও নখের দাগ রয়েছে।
এর আগে গত ১ মে বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ ছিল স্কুলছাত্রী তাসপিয়া আমিন।
এ ঘটনায় ৩ মে তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন পতেঙ্গা থানায় তাসপিয়ার বন্ধু আদনান মির্জাকে প্রধান আসামি করে ৬ জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
আদনান মির্জা মামলার আসামি ফিরোজের পরিচালিত ‘রিচ কিডস’ নামের গ্যাংস্টারের (এডমিন) প্রধান। আর বাকি চার আসামি সেই গ্যাংস্টারের সদস্য- শওকত মিরাজ, আসিফ মিজান, ইমতিয়াজ সুলতান ইকরাম ও সোহায়েল প্রকাশ সোহেল।
তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন আসামিদের বিরুদ্ধে তার মেয়েকে গণধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ এনেছেন।” স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা চ্ট্টগ্রামের ইয়াবা ব্যবসায়ীর তালিকায় তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন ও চাচা নুরুল আমিনের নাম রয়েছে। এ প্রেক্ষিতে ইয়াবা ব্যবসার বিরোধ নিয়ে তাসফিয়াকে হত্যা করা হয়েছে কিনা সে বিষয়টিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে তাসপিয়ার বাবার দাবি, আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ধামাচাপা দিতেই ইয়াবা ব্যবসার বিষয়টিকে সামনে আনা হচ্ছে। তিনি বলেন, টেকনাফের সবার নাম ওই তালিকায় আছে। কেউ ইয়াবা ব্যবসা করে, কেউ করে না। সোমবার বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি মেয়ের হত্যার সাথে তৃতীয় কোনো পক্ষের ইন্ধন রয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন। লিখিত বক্তব্যে মোহাম্মদ আমিন বলেন, তাসপিয়াকে কিছু চিহ্নিত নরপশু মধ্যযুগীয় কায়দায় নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। এ হত্যাকাণ্ডে তৃতীয় কোনো পক্ষের ইন্ধন আছে কি না তা খতিয়ে দেখার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করছি। হত্যার রহস্য উদঘাটনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে মোহাম্মদ আমিন বলেন, আপনি তো বুঝেন প্রিয়জন হারানোর বেদনা কতটা অবর্ণনীয়। এদিকে হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দিতে ইয়াবা ব্যবসার বিষয়টি সামনে আনা হয়েছে মোহাম্মদ আমিনের এমন অভিযোগের বিষয়ে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের কর্ণফূলী জোনের সহকারি কমিশনার জাহেদুল ইসলাম বলেন, মামলার তদন্তের স্বার্থে আমরা সব দিক খতিয়ে দেখছি। উল্লেখ্য, গত ২ মে স্থানীয়রা পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে একটি লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ সৈকত এলাকার ১৮ নম্বর ব্রিজের উত্তর পাশে পাথরের ওপর উপুড় হয়ে পড়ে থাকা অজ্ঞাত লাশটি উদ্ধার করে। পরে স্বজনরা লাশটি তাসপিয়ার বলে শনাক্ত করেন। সুরতহাল রিপের্টে মরদেহের এক চোখ উপড়ে ফেলা, অপর চোখ নষ্ট করে দেয়া ছাড়াও নাক-মুখ থেঁতলানো, পিঠ, বুক এবং নিতম্বে নির্যাতনের ছাপ পেয়েছে পুলিশ। তার বুকের মাঝেও নখের দাগ রয়েছে। এর আগে গত ১ মে বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ ছিল স্কুলছাত্রী তাসপিয়া আমিন। এ ঘটনায় ৩ মে তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন পতেঙ্গা থানায় তাসপিয়ার বন্ধু আদনান মির্জাকে প্রধান আসামি করে ৬ জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদনান মির্জা মামলার আসামি ফিরোজের পরিচালিত ‘রিচ কিডস’ নামের গ্যাংস্টারের (এডমিন) প্রধান। আর বাকি চার আসামি সেই গ্যাংস্টারের সদস্য- শওকত মিরাজ, আসিফ মিজান, ইমতিয়াজ সুলতান ইকরাম ও সোহায়েল প্রকাশ সোহেল। তাসপিয়ার বাবা মোহাম্মদ আমিন আসামিদের বিরুদ্ধে তার মেয়েকে গণধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ এনেছেন।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

ঠাকুরগাঁওয়ে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চিকিৎসাধীন ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com