পঞ্চগড়ের

দেবীগঞ্জে জাহানারা হত্যার বিচারের আকুতি পিতা হাছেন আলীর…

শুক্রবার, ০৮ এপ্রিল ২০২২ | ৫:২৫ অপরাহ্ণ |

দেবীগঞ্জে জাহানারা হত্যার বিচারের আকুতি পিতা হাছেন আলীর…
প্রতিনিধির পাঠানো তথ্য ও ছবিতে ডেক্স রিপোর্ট/সংবাদ গ্যালারি

হত্যাকাণ্ডের ১৪ মাস পার হলেও এখনো আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা পড়েনি। হত্যাকান্ডের শিকার দেবীগঞ্জ উপজেলার সবুজ পাড়া গ্রামের হাছেন আলীর মেয়ে জাহানারা বেগম একই উপজেলার খারিজা ভাজনী সিট মহলের কামাত পাড়া এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের সাথে বিয়ে হয়, তার দুটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

এঘটনায় সন্দেহভাজন মোজাফফর ও ফনি ভুষন দেবকে আটক করেছিল দেবীগঞ্জ থানা পুলিশ। তবে ভিকটিমের স্বামী আব্দুর রাজ্জাক মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে হত্যায় জড়িত নয় বলে এফিডেভিট করে দেন। পরে জামিনে বের হয়ে আসে আটককৃতরা। হত্যাকান্ডের বিযয়ে আপোষের জন্য টাকার বিনিময়ে ভিকটিমের স্বামী আব্দুর রাজ্জাকের সাথে সন্দেহভাজন আসামীদের আপোষের পরে তৎকালিন তদন্ত কর্মকর্তা ও তদন্তে রহস্যজনক আচরন শুরু করেন।


এদিকে ঘটনার পর থেকে ওই এলাকার সফিয়ার রহমান বঙ্কু ও বুলেট পলাতক রয়েছেন। দীর্ঘদিনেও পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন জমা না দেয়ায়, ন্যায় বিচারের আশা হারাচ্ছে বাদী।

মামলার বর্তমান তদন্তকারী কর্মকর্তা দেবীগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক রাশেদুল ইসলাম জানান, জামিন প্রাপ্ত আসামীদের ডিএনএ পরীক্ষার জন্য আদালতে আবেদন দিয়েছি। বাকী দুইজন আসামী ধরার অনুসন্ধান চলছে।


এর আগে জাহানারার বাবা হাছেন আলী বাদী হয়ে ১৫ই মার্চ ২০২১ সালে দেবীগঞ্জ থানায় অজ্ঞাতনামা আসামী দিয়ে হত্যা মামলা দায়ের করে। মামলায় উল্লেখ করেন, জাহানারা এলজিইডির মাটিকাটা শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন ১৪ই মার্চ রাতে সন্তানদেরকে খাবার দিয়ে বাইরে গেলে গভীর রাত হলেও বাড়িতে ফিরে আসেনি। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে, না পেয়ে ১৫ই মার্চ সকাল সাড়ে সাতটায় স্থানীয়রা দেখে জাহানারা বাড়ির পাশেই বাঁশবাগানে গলায় রশি দিয়ে ফাঁস লাগানো রয়েছে।

বাদীর ধারণা যেকোনো সময় অজ্ঞাত নামা দুস্কৃতিকারীরা পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য মৃতদেহ উল্লেখিত স্থানে গলায় রশি দিয়ে বাঁশের সাথে ঝুলিয়ে রাখে।


সরেজমিন দেবীগঞ্জ উপজেলার খারিজা ভাজনি, কামাত পাড়ায় স্থানীয়দের মাধ্যমে জানা যায়, জাহানারা বেগমের কিছু টাকা ছিল, সেটা প্রতিবেশি সফিয়ার রহমান বঙ্কু ও মোজাফফর হোসেনের মাধ্যমে লেনদেন করতেন। এতে কিছু লাভ নিতেন তিনি।

প্রতিবেশী আনসার ভিডিপির সদস্য আমিনা বেগম জানান, পুলিশের উপস্থিতিতে আমি লাশ নামানোর পর মৃতদেহ চেক করি, তাতে যৌনাঙ্গ ফুলা সহ গলা ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় দাগ ছিল এবং মাথার চুল বাঁধানো কাকড়া ক্লীপ ভাংগা অবস্থায় মাথার বিভিন্ন স্থানে ঢুকানো ছিল।

ক্রিমিনাল ইনভেষ্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট বাংলাদেশ পুলিশ সিআইডি প্রতিবেদনে ভিকটিমের পরনের কাপড়ে পুরুষের বীর্যের উপাদান সনাক্ত হয়েছে। ঘটনার পর থেকে পলাতক, সফিয়ার রহমান বঙ্কু ও তার বাবা আজিজার রহমানের মুঠোফোনে কথোপকথনের একটা ওডিও ক্লিপস দৈনিক সকালের সময়ের হাতে রয়েছে। ওই ক্লিপসে ঘটনার সাথে জড়িত মোজাফফর, ফনি ভুষন দেব সিংহ রয়েছে বলে স্বীকার করেন সফিয়ার রহমানের বঙ্কু।

জাহানারার বাবা হাছেন আলী জানান, তার মেয়েকে যারা নির্মমভাবে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান তিনি। তিনি আরও জানান, পলাতক বুলেট কিছু দিন আগে এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করেছিল, পুলিশকে জানানোর পরেও পুলিশ বুলেটকে আটক করেনি। পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে বিষয়টি আপোষ করারও কথা বলা হয়েছে।

দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জামাল হোসেন, এ বিষয়ে বলেন ৪-৫ মাস আগে মামলা সিআইডির কাছে তদন্তভার হস্তান্তর করা হয়েছে।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

বালিয়াডাঙ্গীতে কলেজ ছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের দায়ে ২ বখাটের কারাদণ্ড…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com