নীলফামারীতে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ হাজার পরিবার

শনিবার, ১২ মে ২০১৮ | ১১:২১ অপরাহ্ণ |

নীলফামারীতে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ হাজার পরিবার
ছবি: অনলাইন

নীলফামারীর ডোমার, ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলায় গত বৃহস্পতিবার রাতের কালবৈশাখীর ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৫০ হাজার পরিবার। ঝড়ে ঘরবাড়ি বিধ্বস্তসহ এসব পরিবারের ১৭ হাজার পাঁচশ হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ট হয়েছে। ওই ঝড়ের কবলে পড়ে ৯৬ হাজার পরিবার বিদ্যুৎবিহীন রয়েছে।

এমন ক্ষয়ক্ষতিতে ডোমার ও ডিমলা উপজেলাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন নীলফামারী-১ আসনের সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার। শনিবার দুপুরে জেলার ডোমার উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে দুর্যোগ পরবর্তী মত বিনিময় সভা ও সংবাদ সম্মেলনে তিনি ওই দাবি জানান।

webnewsdesign.com

তিনি দাবি করে বলেন, ‘ওই ঝড়ে ডোমার উপজেলার নয়টি এবং ডিমলা উপজেলার তিনটি ইউনিয়নের কৃষক ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। কিভাবে ওই ক্ষতির মোকাবেলা করবেন সে পথ খুঁজে পাচ্ছেন না তারা। বিষয়টি সরকারের উচ্চ মহলে তুলে ধরা জরুরি। এক্ষেত্রে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও সংবাদ মাধ্যমের ভূমিকা অপরিসিম।’

তিনি বলেন, ‘গরিব-ধনী, ছোট-বড় কৃষক সকলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। ব্যাংক ঋণ, এনজিও ঋণ ও বাকিতে সার বীজ, কীটনাশক কিনে সেচ নির্ভর বোরো ধান আবাদ করেছেন কৃষক। ধান হারিয়ে ঋণ ও সেচকাজে ব্যবহার করা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার সামর্থ্য হারিয়ে ফেলেছেন তারা। এনজিও, ব্যাংক এবং বিদ্যুৎ বিভাগ ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের যাতে পরবর্তি ফসল না উঠা পর্যন্ত কিস্তি স্থগিত রাখেন এবং বিদ্যুৎ বিভাগ বিলের জন্য তাদের চাপ সৃষ্টি না করেন সে বিষয়টি এখন নিশ্চিত করা জরুরি। পাশাপাশি আগামী ফসল ফলানোর জন্য তাদের সহজ সর্তে ঋণের ব্যবস্থা করা এবং বিনামূল্যে সার বীজ কীটনাশক সরবরাহ করার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে।’ দুর্যোগ মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা ও বিত্তবানদের এগিয়ে আসারও আহবান জানান তিনি।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন ডোমার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বসুনিয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে ফাতিমা, ডোমার উপজেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের কর্মকর্তা এবং গণমাধ্যম কর্মীরা।

সভায় জানানো হয়, বৃহস্পতিবারের ঝড়ে ডোমার ও ডিমলা উপজেলায় ১১ কেভির একশত কিলোমিটার লাইনে ২২টি  পিলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত ১৭ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎবিহীন আছেন। বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে আরো দুই থেকে তিন দিন সময় লাগবে।

অপরদিকে ডোমার পল্লী বিদ্যুতের ডোমার, ডিমলায় এক হাজার ৩৫২ কিলোমিটার লাইনে নয়টি পিলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে ৫৩ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। এর মধ্যে ৫০০ কিলোমিটার মেরামত করে প্রায় পাঁচ হাজার গ্রাহকের সংযোগ চালু করা সম্ভব হয়েছে।

এদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ সূত্র জানায়, ওই ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে জেলার ডোমার, ডিমলা এবং জলঢাকা উপজেলার ২২টি ইউনিয়নে ১৭ হাজার পাঁচ শত হেক্টর জমির ফসল আক্রান্ত হয়েছে। সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১২ হাজার ৩৬ হেক্টর। এর মধ্যে বোরো ক্ষেত নয় হাজার ২৯৮ হেক্টর, আউশ ৫১ হেক্টর, পাট এক হাজার ৮৩৬ হেক্টর,বাদাম ১২০ হেক্টর,ভুট্টা ৪৮৮ হেক্টর, মরিচ ২৩ হেক্টর, সব্জি ২১৭ হেক্টর এবং মুগডাল তিন হেক্টর।

অপরদিকে নীলফামারী-৩ (জলঢাকা-কিশোরগঞ্জ আংশিক) আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা দাবি করে বলেন, ‘গত দুইদিন ধরে আমার নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শন করে যা দেখেছি, যে পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা পূরণ করা সম্ভব না। মানুষ দাদন করে, এনজিও ঋণ করে সার বীজ কীটনাশক বাকিতে নিয়ে ফসল ফলিয়েছিল। দুই একদিনের মধ্যে তাদের ফসল ঘরে ওঠার কথা ছিল। আমার জানা মতে ৪/৫ জন কৃষক তাদের ক্ষতিগ্রস্ত ফসলের মাঠ দেখে জ্ঞান হারিয়েছেন। তাদের বিষয়ে আমাদের ভাবতে হবে। অনেকে ঘরবাড়ি হাড়িয়ে এখনও খোলা আকাশের নিচে পলিথিন টাঙ্গিয়ে আছেন। এমন ঝড় এ অঞ্চলের মানুষ এর আগে দেখেনি।’

তিনি জানান, জলঢাকা উপজেলার সাত হাজার পরিবারের আট হাজার হেক্টর জমির ফসল সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পল্লী বিদ্যুতের ২৫ হাজার এবং পিডিবির এক হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎবিহীন আছে বলে সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে জানতে পেরেছেন।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার রাত সারে আটটা থেকে নয়টার মধ্যে শুরু হওয়া ওই কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে  গাছ ও ঘর ভেঙে পড়ে ডোমার ও জলঢাকা উপজেলায় মা-মেয়েসহ সাত জন নিহত হন, তিন উপজেলায় আহত হয় কমপক্ষে ৫০ ব্যক্তি। এ সময় শিলাবৃষ্টিতে ঝড়ে পড়ে ক্ষেতে থাকা পাকা ধান। সরবরাহ তার ছিড়ে ও খুটি ভেঙ্গে পড়ে সরবরাহ বন্ধ থাকে বিদ্যুৎ।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

ঠাকুরগাঁওয়ে হোটেল শ্রমিকের মাঝে সেচ্ছাসেবকলীগের  ঈদসামগ্রী বিতরণ…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com