পঞ্চগড়ে চা পাতার ন্যায্যমূল্যের দাবিতে রাজপথে চাষিরা

বুধবার, ১৫ মে ২০১৯ | ১:৪১ অপরাহ্ণ |

পঞ্চগড়ে চা পাতার ন্যায্যমূল্যের দাবিতে রাজপথে চাষিরা
প্রতিনিধির পাঠানো তথ্য ও ছবিতে ডেস্ক রিপোর্ট

পঞ্চগড়ে আবারো চা পাতার দাম কমেছে। হঠাৎ করে কাঁচা চা পাতার মূল্য কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন চা চাষিরা। চা পাতার ন্যায্যমূল্যের দাবিতে আবারো আন্দোলনে নেমেছেন তাঁরা। করছেন মানববন্ধন, বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ ও প্রতিবাদ সমাবেশের মতো কর্মসূচি।

আজ রবিবার পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার ক্ষুদ্র চা চাষিরা চা পাতার ন্যায্য মূল্যের দাবিতে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। উপজেলার শালবাহান রোড বাজার এলাকায় সকাল সাড়ে ১১ টা থেকে আড়াই টা পর্যন্ত প্রায় ৩ ঘন্টা পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন।


সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত এক সপ্তাহে কাঁচা চা পাতার মূল্য কেজি প্রতি ১৫ থেকে ১৮ টাকা পর্যন্ত কমেছে। চা পাতার মূল্য নির্ধারণ কমিটি প্রতি কেজি কাঁচা পাতার মূল্য ২৪ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করলেও তা মানছেন না কারখানা মালিকরা। কিন্তু কারখানা মালিকরা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজি দরেও চাষিদের থেকে পাতা ক্রয় করতেন। হঠাৎ করে কারখানা মালিক ও বড় বাগানের মালিকরা সিন্ডিকেট করে দাম কমিয়েছেন বলে অভিযোগ ক্ষুদ্র চা চাষিদের। এদিকে কারখানা মালিকরা চা পাতার দাম কমার জন্য অকশন মার্কেটের দর পতনকে দায়ি করছেন।

শালবাহান এলাকার চা চাষি বশির আলম জানান, বড় বাগান মালিক আর কারখানা মালিকরা সিন্ডিকেট করে দাম কমিয়ে দিয়েছেন। তাঁরা নির্ধারিত মূল্যও মানছেন না। ২০ টাকা কেজি করে চা কিনছেন। প্রতি কেজি চা উৎপাদন করতেই আমাদের এখন ১৫ থেকে ১৮ টাকা খরচ পড়ে যাচ্ছে। এই দাম চলতে থাকলে আমাদের লোকসান গুণতে হবে।

স্মল টি গ্রোয়ার্স এসোসিয়েশনের তেঁতুলিয়া উপজেলার সভাপতি হাবিবুর রহমান হবি জানান, পঞ্চগড়ে সরকারিভাবে একটি চা কারখানা স্থাপন করার কথা ছিলো সেটি দ্রুত স্থাপন করা হোক। সেই সাথে পঞ্চগড়ের সকল চাষিদের একটি চা বিক্রয় সেন্টারে বিক্রির ব্যবস্থা করতে হবে। সেখান থেকে কারখানা মালিকরা তাদের চাহিদা অনুযায়ী চা কিনে নিয়ে যাবেন। মূল্য নির্ধারণ কমিটি যে মূল্য নির্ধারণ করেছে সেটি বহাল রাখলেও আমরা খুশি। তবে এর কম আমরা মেনে নিবো না।

পঞ্চগড় জেলা স্মল টি গ্রোয়ার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি জামাল উদ্দিন বলেন, কখনো ৩৮ টাকা আবার কখনো ৪০ টাকা দরে চা কিনছেন কারখানা মালিকরা। এখন চায়ের ভরা মৌসুম। এখন তাঁরা কৌশল করে চায়ের দাম কমিয়ে দিয়েছেন।

বাংলাদেশ টি ফেক্টরি ওনার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ মো. শাহ আলম জানান, গত ৩০ এপ্রিল হঠাৎ করেই অকশন মার্কেটে পঞ্চগড়ে তৈরি চায়ের দাম কমে যায়। এ বছরেই ২ দফা দাম কমেছে। গতবছর অকশন মার্কেটে যে চা পাতা ২৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতো এখন তা ১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ অবস্থায় নির্ধারিত মূল্যে কাঁচা চা পাতা কিনলে কারখানা মালিকরা লোকসানে পড়বে। তাই হঠাৎ করেই কাঁচা চা পাতার মূল্য কমানো হয়েছে।

বাংলাদেশ চা বোর্ড পঞ্চগড় আঞ্চলিক কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. শামীম আল মামুন বলেন, গত ৯ জানুয়ারি চা পাতার মূল্য নির্ধারণ কমিটি প্রতি কেজি কাঁচা পাতার মূল্য নির্ধারণ করে ২৪ টাকা ৫০ পয়সা। চলতি বছরের ১৫ টি অকশন পর্যন্ত এই নির্ধারিত মূল্য অনুযায়ী কারখানা মালিকরা চাষিদের চা পাতা ক্রয় করবেন। কিন্তু মাত্র দুটি অকশন যেতে না যেতেই কারখানা মালিকরা নির্ধারিত মূল্যকে উপেক্ষা করে ২০ টাকা দরে কিনছেন। বিষয়টি নিয়ে চা চাষিদের মধ্যে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে।

পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক ও চা পাতা মূল্য নির্ধারণ কমিটির সভাপতি সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, চা পাতার দাম কমার বিষয়টি নিয়ে সোমবার চা পাতা মূল্য নির্ধারণ কমিটির জরুরি সভা ডেকেছিলাম। কিন্তু কারখানা মালিকদের অধিকাংশই ঢাকায় অবস্থান করায় তা পরিবর্তন করে ১৫ মে করা হয়েছে। ওই সভায় এ সমস্যার সমাধান করা হবে।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments



ময়মনসিংহে মাসব্যাপী বাণিজ্য মেলা উদ্বোধন…

প্রধান কার্যালয়ঃ বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com