ঝালকাঠিতে

পাঠক ও জনবল সংকটে খুড়িয়ে চলছে জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগার…

মঙ্গলবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৯:৫৭ অপরাহ্ণ |

পাঠক ও জনবল সংকটে খুড়িয়ে চলছে জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগার…
প্রতিনিধির পাঠানো তথ্য ও ছবিতে ডেক্স রিপোর্ট/সংবাদ গ্যালারি

ঝালকাঠিতে পাঠক ও জনবল সংকটে খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগার। প্রায় দুইশ পাঠকের ধারন ক্ষমতা সম্পন্ন এই গ্রন্থাগারটিতে পাঠক থাকে প্রতিদিন গড়ে ১৫/১৬জন।

এছাড়া গণগ্রন্থাগারটিতে ৪০ হাজার বই থাকলেও এখানে সদস্য রয়েছেন মাত্র ৯৮ জন। অথচ যে পরিমান বই রয়েছে, তাতে দেড় থেকে দুই হাজার সদস্যকে এখান থেকে বাড়ীতে নিয়ে বই পড়তে দেয়া যায়। পাঠক সংকট ছাড়াও গ্রন্থাগারটিতে রয়েছে জনবল সংকট। গত দেড় বছর ধরে এখানে লাইব্রেরিয়ানের পদ খালি রয়েছে। মোট ৮টি পদ থাকার কথা থাকলেও আছে মাত্র দুইজন।


তবে গ্রন্থাগারটির দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানিয়েছেন জনবল সংকটের বিষয় উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে, জনবল সংকট কেটে গেলে পাঠক বৃদ্ধিরও উদ্যোগ নেয়া হবে।

২০০০ সালে ঝালকাঠি শহরের নতুন কলেজ রোডে ৩৩ শতাংশ জমির উপর নির্মিত হয় ঝালকাঠি জেলা সরকারী গনগ্রন্থাগার। এর আগে প্রতিষ্ঠানটি ছোট পরিসরে শহরের পুরাতন ষ্টেডিয়াম সংলগ্ন একটি ভবনে ছিলো। বর্তমানে এই গ্রন্থাগারে ৪০ হাজার বই রয়েছে। দেড় থেকে দুইশ পাঠক এখানে বই পড়তে পারে। কিন্তু পাঠক সংখ্যা এখানে নিতান্তই কম। গ্রন্থাগারের রেজিষ্টার খাতায় দেখা যায় গড়ে প্রতিদিন এখানে ১৫/১৬ জন পাঠক বই ও পত্রিকা পড়তে আসেন।


গ্রন্থাগারের সদস্য সংখ্যা মাত্র ৯৮ জন। সদস্য হলে এখান থেকে বই নিয়ে বাড়ীতে বসে পরা যায়। আবার ফেরত দিয়ে নতুন বই নেয়া যায়। ছাত্রদের জন্য এখানে সদস্য ফি জামানত হিসেবে নেয়া হয় ৩০০ টাকা, শিশুদের জন্য ২০০ টাকা এবং অন্য পাঠকদের জন্য ৫০০ টাকা।

গ্রন্থাগার কর্তৃপক্ষ জানান, গ্রন্থাগারে যে পরিমান বই রয়েছে, তাতে তারা দেড় থেকে দুই হাজার সদস্যকে বই দিতে পারেন। পাঠক সংকট ছাড়াও গ্রন্থাগারটিতে রয়েছে জনবল সংকট। বর্তমানে এখানে একজন লাইব্রেরি সহকারী ও একজন অফিস সহায়ক রয়েছেন। লাইব্রেরি সহকারীই রয়েছেন গ্রন্থাগারের সার্বিক দায়িত্বে। অথচ এখানে পদ রয়েছে ৮টি। অফিস প্রধানের লাইব্রেরিয়ান পদই দেড় বছর যাবৎ রয়েছে শুন্য। এছাড়া শুন্য রয়েছে জুনিয়র লাইব্রেরিয়ান, ক্যাটালগার, ডাটা এন্ট্রি অপারেটর, বুক শার্টার ও নৈশ প্রহরীর পদ। কবে এসব শুন্য পদ পূরণ হবে তা এখানে কর্মরতরাও জানেননা। তবে তারা বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন।


এদিকে এখানে বই পড়তে আসা পাঠকরা জানান, ছাত্র ও যুবকদের মধ্যে মোবাইল ফোন আসক্তির কারনে গ্রন্থাগারে পাঠক কমে যাচ্ছে। কয়েকজন পাঠক গ্রন্থাগারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানালেন, তাদের পাঠকদের জন্য প্রচুর পরিমান বই থাকলেও সে তুলনায় পাঠক নেই। এছাড়া এত বড় লাইব্রেরি পরিচালনা করার জন্য যে জনবল দরকার সেটাও তাদের নেই।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

বালিয়াডাঙ্গীতে কলেজ ছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের দায়ে ২ বখাটের কারাদণ্ড…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com