ফারজানা আহমেদ এর একটি অণুগল্প 

রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯ | ৩:২৬ অপরাহ্ণ |

ফারজানা আহমেদ এর একটি অণুগল্প 

অণুগল্প 
“কি অপরাধে”
– ফারজানা আহমেদ

মা আমার কি হইছে? এতো কষ্ট পাই কেন মা?
হাজেরা গোপনে চোখের পানি মুছে বলে, বাবাগো তোমার তেমন কোন কঠিন রোগ হয় নাই।আল্লাহর রহমতে শিগ্রহই ভাল হইয়া যাইবা।
হাজেরা দেখে ছেলের চোখ দুটি ছলছল করছে। এতোটুকু ছেলে,কি মায়াবী চোখ দুটি কিন্তু সেই চোখে এখন ভয় আতঙ্ক জরানো।
শিফনের মনে হয়, মা তার কাছ থাইকা কিছু লুকাইতেছে।ওর কঠিন রোগ না হইলে কেন মা সারাদিন কান্দে, কেন সবাই ওরে দেখতে আসে?
সকালে শিফনের বড় মামা আইছিল, অনেকগুলো লাল লাল আপেল আনছে।মামা একটা বড় গার্মেন্টসে চাকরি করে।
শিফনের ইচ্ছা ও বড় হইয়া মামার মতো বড় গার্মেন্টসে চাকরি করবো।


হাজেরা ছেলেরে কয় বাবা আপেল খাবা?
শিফন বলে মাগো আমারে ওই বড় লাল আপেলটা কাইটা দাও।
ছেলের জন্য আপেল কাটতে বসে কিন্তু ও নিজের চোখের পানি সামলাইতে পারে না। কি আপরাধ করছিল ওর এতটুকু ছেলেটা যে,এই আট বছর বয়সে ওর রক্তে ক্যান্সার হইল!
ছেলের বাপ ছিল,বড় একটা বইন ছিল তাও রাস্তায় এক্সিডেন কইরা মইরা গেল গেলবছর।
হায়রে কপাল ছেলেডার!জন্ম থাইকাই অভাবের মধ্যে এতোটুকু বয়স হইছে।হাজেরার এই একটাই ছেলে, ছেলেডারে ভাল কোন খাবার, ভাল একটা জামা কোনদিনও কিনা দিতে পারে নাই। ও আর সহ্য করতে পারে না।
মনে মনে বলে, হায় আল্লাহ আমার এই কচি শিশুটারে কেন এতো বড় অসুখ দিলা? কেন মায়ের বুক থেইকা তার সন্তানরে কাইড়া নিতে চাও? এই বাচ্চাডাতো কোন অপরাধ করে নাইকা।ওরে কেন এতো বড় শাস্তি দিলা?

যে আসে সেই কয়, কি অপরাধে আল্লাহ এতটুকু ছেলেডারে এতো বড় অসুখ দিল!শিফন বলে মা আল্লাহ কি খারাপ মাইনষেরে কঠিন অসুখ দেয়?
হাজেরার বুকটা কাইপা কাইপা উঠে। অজানা একটা আতঙ্ক এসে ভিড় করে ওর মনে।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments



ঠাকুরগাঁওয়ে ঔষধ কিনে রক্তাক্ত হলেন জামাল…

প্রধান কার্যালয়ঃ বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com