বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ- মোঃ ফিরোজ খান

শুক্রবার, ১৬ আগস্ট ২০১৯ | ১২:০২ অপরাহ্ণ |

বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ- মোঃ ফিরোজ খান
সংবাদ গ্যালারি ডেস্ক...

কবিতা সেই বিশুদ্ধ শিল্প যার ছোঁয়ায় আলোকিত হোক প্রত্যেক পাঠক-ও আমার বন্ধু মহলের সকল বন্ধুরা এছাড়াও এ দেশের সকল ধরনের মানুষ যারা এদেশের মাটিতে জন্মনিয়েছেন।

যে শিশু ভুমিষ্ঠ হলো এইদিনে,১৫ই আগষ্ট,তার চোখে, মুখে ও যেন তীব্র প্রতিবাদ।সে পেয়েছে স্বাধ এই ১৫ আগষ্ট জন্মগ্ৰহণে,নতুন বিশ্বের দ্বারে তাই সে ব্যক্ত করে বলে উৎতকন্ঠের সুরে,আমি এই বাংলার বুকে এক শোকাহত শিশু আমার আছে বেচে থাকার অধিকার,জন্মমাত্র সুতীব্র চিৎকারে বলে বাংলাদেশ, আমার জনকের বাংলাদেশ।


আমার লেখার এই কবিতা তোমায় দিলাম উপহার তোমার শোকের এই দিনে।
আমার দেশের মানুষের যে ক্ষুধার যন্ত্রণা তুমি বিনা বিষাক্ত মনে হয় এই পৃথিবীতে বেঁচে থাকা হে আমার দেশ বরেন্য জনক তুমি তো দেশ উপহার দিয়েছো তুমি তো দেশের মানুষের কষ্টের কথা গুলো মনদিয়ে শুনেছিলে ,তবে কোথায় চলে গেলে এই দেশের মায়া-মমতা ত‍্যাগ করে ,হে বীরশ্রেষ্ঠ তুমি তো শ্রেষ্ঠত্বের অধিকার পেয়েছো,কিন্তু আমরা সবাই যে আজ তোমার শোকেতে কাতর,ঐ আকাশেপূর্ণিমা-চাঁদ যেন মনে হয় ঝল্সানো রুটি,বাতাসে ভেসে আসে তোমার নাম তুমি যেন দীপ্তির দীপ্ত শিখা ছিলে এই দেশের কাছে। আমি জন্মনেওয়া নতুন শিশুদের এদেশের সবুজের মাঝে ছেড়ে দিতে বলবো ,এবং এই সবুজের সমারোহ হবে প্রত‍্যেক জন্মনেওয়া শিশুদের স্থান।

এই জীর্ণ পৃথিবীতে শিশুযেন বেড়ে উঠে ব্যর্থ, মৃত আর ধ্বংসস্তুপের মাঝে।তবুও তোমার মতো ক‍রে ,চলে যেতে হবে আমাদের ও এই দেশের ভালো বাসা ছেড়ে। চলে যাব-তবু আজ যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ,বার বার শোধবো,মুজিব তোমার নাম তুমি বলেছিলে প্রতিটি শিশুই যেন হাজার হাজার মজিব রুপে এই বাংলার বুকে জড়িয়ে থাকে,এ বিশ্বকে যেন শিশুরা গড়ে তুলবে এবং বাসযোগ্য করবে । এ পৃথিবী অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকবে জনক তোমার তোমাকে স্মরন করে , একটি শিশু ও মাথা নোয়াবার নয়, তুমি যে দিয়েছো শিক্ষা।

তাই আমি জন্মেই দেখি ক্ষুব্ধ যেন স্বদেশভূমি তবুও ভেবে দেখি এযে তোমার
গড়ে তোলা লাল সবুজের সমারোহ দেশ
আমার রক্তাক্ত বাংলাদেশ, মায়েদের দেশ।
তুমি বলেছিলে ,আমার দেহের রক্তের বিনিময়ে নতুন শিশুকে করে যাব আশীর্বাদ,তাবেই সৃষ্টি হবে নতুন ইতিহাস নতুন চেতনার।

যে ভাবে এসেছিলেন,কাজী নজরুল ইসলাম হাতে নিয়ে অগ্নিবীণা ,এ যেন
ধূমকেতুর মতো ছিলো তাঁর প্রকাশ।
তিনি বলেছিলেন,মানুষের চেয়ে কিছু নাই, নহে কিছু মহীয়ান সে যে সৈনিক, সে যে মানুষ।বিদ্রোহী কবি বলেছিলেন তার চেতনার কন্ঠে, বল বীর —বল উন্নত মম শির,শির নেহারি আমারি নত-শির ওই শিখর হিমাদ্রির।এই কবিতার সুর যেন হ্নদয়ের ভেতরে এক তীব্র প্রতিবাদ এর ঝংকার তুলে সকলের মাঝে, শুধুই বুকে কষ্ট নিয়ে মজিব তোমার কথাকে ই ভেবে ভেবে। দেশের জনক আমি তোমার স্বরণে স্বরণীয় করে রাখবো এই বাংলার বিদ্রোহী কবির কবিতার বিদ্রোহী কন্ঠস্বর দিয়ে ।

“‘বল মহাবিশ্বের মহাকাশ ফাড়ি
চন্দ্র সূর্য গ্রহ তারা ছাড়ি,
ভূলোক দ্যুলোক গোলক ভেদিয়া
খোদার আসন আরশ ছেদিয়া,
উঠিয়াছি চির-বিস্ময় আমি বিশ্ব-বিধাত্রীর !
মম ললাটে রুদ্র ভগবান জ্বলে রাজ-রাজটীকা দীপ্ত জয়শ্রীর ! বল বীর —
আমি চির উন্নত শির।

১৫ ই আগষ্টের শোকের ছায়া নেমে এসেছে এই গভীর রাত থেকে। আমি আমার কবিতার মাধ্যমে এই দেশের সকল ধরনের মানুষের মাঝে এক শোকের মাতম যে কি কষ্ট কর হতে পারে তার কিছুটা বিবরন দিতে চেষ্টা করেছি মাত্র।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments



ইবির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক সভাপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ…

প্রধান কার্যালয়ঃ বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com