‘বিজয়ের মাসটা আমাদের জন্য বিরাট অনুপ্রেরণার

রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ |

‘বিজয়ের মাসটা আমাদের জন্য বিরাট অনুপ্রেরণার
প্রথমবারের মতো আয়োজিত এই আসরে কোন খেলাই সরাসরি সম্প্রচারে এগিয়ে না আসলেও ফাইনাল খেলা সরাসরি সম্প্রচার করতে রীতিমতো হুমড়ি খেয়ে পড়েছে ‘ঘুম থেকে বিলম্বে জেগে ওঠা’ একাধিক কিছু টিভি চ্যানেল।

হয়ে মুগদা বিশ্বরোডের দিকে এগোতেই দেখা গেল বেশ কিছু পথচারী দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কিছু একটা শুনছেন। কানে ভেসে এলো চলন্ত রিক্সা থেকে রেকর্ড করা মাইকিং হচ্ছে, ‘ভাইসব, ভাইসব, একটি ঘোষণা। কাল দুপুর ২ ঘটিকায় সাফ অ-১৫ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে। এতে বাংলাদেশ বনাম ভারত মোকাবেলা হবে। জমজমাট এই ফাইনাল খেলা উপভোগ করতে চলে আসুন কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে। দর্শকদের জন্য সুখবর হচ্ছে তাদের জন্য টিকেট ফ্রি।’
এ রকম আরও মাইকিং করতে দেখা গেল মানিকনগর, কমলাপুর, আরামবাগ, ফকিরেরপুল এবং মতিঝিল এলাকায়। বলাইবাহুল্য, অনেক পথচারীকেই দেখা গেছে এ নিয়ে আগ্রহ প্রকাশ করতে। করার কারণও আছে। কেননা বাংলাদেশ অ-১৫ জাতীয় মহিলা ফুটবলাররা স্কিল, ফিটনেস, স্ট্যামিনা, এটিচ্যুড এবং স্কোরিং এ্যাবিলিটি দিয়ে যেভাবে পুরো আসরে খেলেছে তাতে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে বাংলাদেশী ফুটবলপ্রেমীদের মাঝে। ফলে আজকের ফাইনাল নিয়ে তাদের মাঝে তৈরি হয়েছে ব্যাপক কৌতূহল-আগ্রহ-উত্তেজনা।
শুধু তাই নয়, যারা বিভিন্ন কারণে স্টেডিয়ামে গিয়ে খেলা উপভোগ করতে পারবেন না তাদের জন্যও রয়েছে মস্ত সুখবর। প্রথমবারের মতো আয়োজিত এই আসরে কোন খেলাই সরাসরি সম্প্রচারে এগিয়ে না আসলেও ফাইনাল খেলা সরাসরি সম্প্রচার করতে রীতিমতো হুমড়ি খেয়ে পড়েছে ‘ঘুম থেকে বিলম্বে জেগে ওঠা’ একাধিক কিছু টিভি চ্যানেল। বিটিভি ওয়ার্ল্ড, সময় টিভি অনলাইন (সময় নিউজ ডট.টিভি), প্রথম আলোর ফেসবুক পেজ এবং প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণ (ইউটিউবে) সরাসরি দেখা যাবে খেলা। ফাইনালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। ফাইনাল খেলা উপলক্ষে শনিবার এক প্রি-ফাইনাল ম্যাচ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) ভবনের সম্মেলন কক্ষে। এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ এবং ভারতের কোচ ও অধিনায়ক এবং বাফুফের হেড অব মিডিয়া আহসান আহমেদ অমিত।
বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, ‘টুর্নামেন্ট শুরুর আগে আমাদের লক্ষ্য ছিল প্রতিটি ম্যাচে জয়ের জন্য নামব। আমাদের মেয়েরা সেটা সঠিকভাবে করেছে। সেজন্য মেয়েদের সালাম জানাই। তারা প্রত্যেকটা ম্যাচে প্রথম থেকে ৯০ মিনিট পর্যন্ত দর্শকদের আনন্দ দেয়ার চেষ্টা করেছে। আগের তিন ম্যাচে যেভাবে খেলেছি, ফাইনালেও সেভাবেই খেলতে চাই। আমরা আমাদের লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হতে চাই না। স্বাভাবিক খেলাটা খেলে এবং সুযোগ কাজে লাগাতে চাই। ভারত শক্তিশালী দল হলেও ওদের চেয়ে আমরা কোন অংশে পিছিয়ে নেই।’
আগের তিন ম্যাচে বাংলাদেশ দল ১২টা গোল করেছে ঠিকই। কিন্তু গোলের সুযোগ নষ্ট করে এর দ্বিগুণেরও বেশি। এ প্রসঙ্গে ছোটনের ভাষ্য, ‘আমরা ফিনিশিং নিয়ে কাজ করেছি। আশাকরি ফাইনালে ভুলগুলো অনেক কমে যাবে। মেয়েরা বড় মঞ্চে খেলবে। তাই বলে তারা কোন চাপে নেই। ২০১৫ সালে তাজিকিস্তানে ভারতের এই দলটাকেই আমরা হারিয়েছিলাম। ওরা আমাদের চেনা প্রতিপক্ষ। যদিও ওই আসরে আমরা ইরানকে ফাইনালে প্রত্যাশা করেছিলাম।’
দলের দুই নির্ভরযোগ্য ফুটবলার তহুরা খাতুন এবং সাজেদা খাতুন ইনজুরিতে। তারা কি ফাইনালে খেলতে পারবে? ‘তহুরা আজ ৪০ মিনিটের মতো অনুশীলন করেছে। সে পুরোপুরি খেলার জন্য ফিট। তবে সাজেদার চোট এখনও সারেনি। কাজেই ফাইনালে তার খেলার কোন সম্ভাবনা নেই।’ সাজেদার বিকল্প কে? ‘অনেকেই আছে। ঋতুপর্ণা, লাবনী, দীপা… ওরা দারুণ খেলোয়াড়।’ ছোটনের আশ্বস্ত করা জবাব।
খেলা যদি টাইব্রেকারে গড়ায় তাহলে সেজন্যও প্রস্তুত আছেন ছোটন। এ নিয়ে অনুশীলন করিয়েছেন তিনি।
অতি আত্মবিশ্বাস না আবার ডোবায় লাল-সবুজদের। এ নিয়ে ছোটনের অভিমত, ‘ফাইনাল ম্যাচ সম্পূর্ণ ভিন্ন ম্যাচ। আর দক্ষিণ এশিয়ার সবসময়কার ফেভারিট ভারত হলো প্রতিপক্ষ। তাদের হাল্কাভাবে নেয়ার কিছু নেই। আমরা মেয়েদের মোটিভেট করেছি এবং টিম মিটিংয়ে প্রতিটি বিভাগে মিডফিল্ড, ডিফেন্ডার, স্ট্রাইকার সবার সঙ্গে আলোচনা করেছি। যাতে অতি উৎসাহী না হয় সেটাও বুঝিয়ে দিয়েছি। তারা আসলে ফাইনালের জন্য মুখিয়ে আছে।’ দর্শক বেশি থাকলে চাপে পড়বে কিনা মেয়েরা? ‘মোটেও না। বরং দর্শক আসার ফলে মেয়েরা আরও উৎসাহিত হবে এবং দর্শকদের আনন্দ দিতেই তারা ফুটবল খেলবে। দর্শকরা হবে তাদের জন্য অনুপ্রেরণা।’
লীগ ম্যাচে ভারতকে হারালেও ফাইনালে তারা নিশ্চয়ই মরণ কামড় দিতে ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করবে। এ নিয়ে ছোটনের মন্তব্য, ‘ম্যাচের প্রতিটি মুহূর্তেই অবস্থার পরিবর্তন হয়। শুরুতে পর্যবেক্ষণ করব ওদের কৌশলটা কি। তখন আমাদের খেলার স্টাইলও পরিবর্তন হবে। বেসিক্যালি আমার ফর্মেশন হবে ৪-৩-২-১।’ বিজয়ের মাসে ফাইনাল। এটা কতটা অনুপ্রেরণার? ‘বিজয়ের মাসটা আমাদের জন্য বিরাট অনুপ্রেরণার। আমরা গত ডিসেম্বেরই শিলিগুড়িতে নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে আমরা ভারতের সিনিয়র টিমের সঙ্গে ড্র করেছিলাম। ফাইনালে একটা উপভোগ্য ম্যাচ খেলেছিলাম এবং রানার্সআপ হই। আর এই ডিসেম্বরে ট্রফি আমাদের জন্য বিশেষ করে মহিলা ফুটবল এগিয়ে যাওয়ার জন্য এই ট্রফিটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’
ভারত কোচ মায়মল রকি বলেন, ‘দলকে ফাইনালের জন্যই তৈরি করে এনেছি। এটা ঠিক যে লীগপর্বে আমরা ভাল খেলিনি একটি ম্যাচে। আশাকরি ফাইনালে ভাল করবে দল। মহিলা ফুটবলে বাংলাদেশ অনেক ভাল করছে। এই আসরে দারুণ খেলছে। গত সাফেও (সিনিয়র) দারুণ করেছে। বাংলাদেশের মহিলা ফুটবল এগিয়ে যাচ্ছে।’ রকি আরও যোগ করেন, ‘কোন চাপ অনুভব করছি না। ফাইনালে মেয়েরা এ্যাটাকিং ফুটবল খেলবে। একাদশে দু’তিনটা পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা আছে।

ফাইনালে স্বাগতিক দল দর্শক সমর্থন পাবে স্বাভাবিক। কিন্তু আমাদের মেয়েরা যদি ভাল খেলে তারাও সমর্থন পাবে।’ ভারত অধিনায়ক বন্যা কবিরাজের ভাষ্য, ‘ফাইনালে কেউই হারতে চায় না। আমরা চাই না। লীগপর্বে বাংলাদেশের বিপক্ষে সেভাবে এ্যাটাক করতে পারিনি। তবে ফাইনালে ঠিকই এ্যাটাক করব।’

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

ঠাকুরগাঁওয়ে দন্দ্বের জেরে সংঘর্ষে আহত-৫, হাসপাতালে ভর্তি…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com