মিরকাদিমের সন্তান মিজানুর রহমান ঝাঁতোষ, ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত

শুক্রবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ১০:১১ অপরাহ্ণ |

মিরকাদিমের সন্তান মিজানুর রহমান ঝাঁতোষ, ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত

মিজান পারভেজ ঝাঁতোষ। একাডেমিক নাম মো: মিজানুর রহমান। তার জন্ম মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ি উপজেলার বেতকা গ্রামের মামা বাড়িতে ১৯৬৮ সালের ৮ নভেম্বর।
সার্টিফিকেট অনুযায়ী জন্ম তারিখ হচ্ছে ১৯৬৮ সালের ১লা জানুয়ারি। বর্তমানে বসবাস করছেন নিজ বাড়ি উত্তর রামগোপালপুর, রিকাবীবাজর, মিরকাদিম, মুন্সিগঞ্জে। তিনি একাধারে একজন শিক্ষক, কবি, উপন্যাসিক এবং গবেষক।
দীর্ঘ ৩২ বছর যাবৎ শিক্ষকতা পেশায় জড়িত রয়েছেন। বর্তমানে তিনি মুন্সিগঞ্জ জেলার বিনোদপুর রামকুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক হিসেবে পেশাগত দায়িত্ব পালন করছেন। বাংলা, ইংরেজি ও স্প্যানিশ ভাষার উপর রয়েছে তার বিশেষ দক্ষতা।
চলতি বছরের প্রথম মাসেই জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৮-এ মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ের শিক্ষক হিসেবে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে মর্যাদা লাভ এবং ঢাকা বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেন। তার জীবনের এই সার্বিক সফলতার গল্প তুলে ধরছেন অনু ইসলাম।
জন্ম : মিজান পারভেজ ঝাঁতোষ এর জন্ম মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ি থানার বেতকা নামক গ্রামে তার নিজ মামা বাড়িতে। তারিখটি ছিলো ৮ নভেম্বর ১৯৬৮ সালে। একাডেমিক সনদ অনুযায়ী তার জন্ম হচ্ছে ১লা জানুয়ারি ১৯৬৮ সালে।
পারিবারিক অবস্থা: বাবা প্রয়াত হয়েছেন অনেকগুলো বছর পার হয়েছে। বর্তমানে মা, স্ত্রী ও দুই পুত্র সন্তান নিয়ে পারিবারিক জীবন যাপন চলছে। মাতা-পিতার জ্যেষ্ঠ সন্তান আমি। এছাড়া আমার আরো দুই ভাই ও দুই বোন তাদের নিজের মতো করে স্ব-স্ব কর্মে নিয়োজিত রয়েছেন।
শৈশব: বাবা ছিলেন একজন ব্যবসায়ী। বাবার ব্যবসার প্রয়োজনে ঢাকাতেই বসবাস শুরু হয়েছিলো আমাদের। ঢাকাতেই আমার শৈশবকাল কেটেছে বলা যায়।
কৈশোর: আমার কৈশোরের সময়কাল কেটেছে যুগপৎভাবে ঢাকা এবং মুন্সিগঞ্জ দুই শহরেই।
যৌবন: যৌবন দুর্দান্ত এক বিস্ময়! প্রাপ্ত বয়সে যখন পৌঁছেছি তখন থেকেই আমি নিজের গ্রাম উত্তর রামগোপালপুর, রিকাবীবাজারেই বসবাস করে আসছি।
পড়াশোনা: প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেছি ঢাকার বিভিন্ন স্কুলগুলোতে। মাধ্যমিকে ঢাকার শান্তিনগর হাই স্কুলে ভর্তি হবার কিছুদিন পর আবার গেন্ডারিয়া খোকন প্রাইমারি স্কুলে ভর্তি হয়েছিলাম। সেখানেও বেশি দিন থাকা হলো না। ফিরে আসি মুন্সিগঞ্জ। মুন্সিগঞ্জ এসে বিনোদপুর রামকুমার উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছি।
এই স্কুল থেকেই আমি ১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দে এস এস সি পরীক্ষা দেই। উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তি হয়েছিলাম শহিদ সরোওয়ার্দ্দী কলেজ, ঢাকাতে। কিন্তু বেশি দূর এগুনো গেল না পড়াশোনা। প্রায় ৮ বছরের একটা গ্যাপ পড়াশোনায়।
৮ বছর পর মুন্সিগঞ্জ সরকারি হরগঙ্গা কলেজে এসে অনিয়মিত ছাত্র হিসেবে ভর্তি হই। হরগঙ্গা কলেজ থেকেই এইচ এস সি পাশ করি এবং একই কলেজ থেকে বি এ পাস কোর্স ডিগ্রি সম্পন্ন করি।
এছাড়াও ডিপ্লোমা কোর্স, বি. এড. কোর্স এবং নর্দান ইউনির্ভাসিটি বাংলাদেশ এবং ঢাকা ইন্টারন্যশনাল ইউনির্ভাসিটি বাংলাদেশ থেকে ইংরেজী সাহিত্য ও ভাষার উপর ¯œাতকোত্তর শিক্ষা সম্পন্ন করেছি।
শিক্ষকতা পেশা : ডিগ্রি পাস কোর্স সম্পন্ন হওয়ার পরপর সময়কাল থেকেই আমি বর্তমানে চাকুরিরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিনোদপুর রামকুমার উচ্চ বিদ্যায়লয়ে এ শিক্ষকতার পেশা দিয়ে আমার কর্ম জীবনের যাত্রা শুরু হয়।
গবেষণা: ইংরেজি ব্যকরণে আধুনিকতার প্রসার (প্রকাশিত), স্মিফনিক ডিজিটাল গ্রামার উদ্ভাবন (প্রকাশিতব্য),বাংলা কবিতায় নতুন আঙ্গিককে ছন্দ আনায়ন (প্রকাশিত), বাংলালিপি ও বর্ণমালা (প্রকাশিতব্য), প্রমিত বাংলা ও সাহিত্য বাংলা সম্পর্কে নতুন অভীক্ষা (প্রকাশিতব্য), ফ্রি-হ্যান্ড রাইটিং, আর্টিকেল এর ব্যবহার ও প্রয়োগ, গধমরপ ঞড়ঁপয সহ কয়েকটি গবেষণার বিষয়ক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে এবং কয়েকটি প্রকাশনার কাজ চলছে। আশা রাখছি পাঠক ও ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে তুলে দিতে পারবো।
সাহিত্যচর্চা: সাহিত্যচর্চা শুরু হয়েছিলো মাধ্যমিকে পড়াশোনা করা সময় থেকেই। মূলত কবিতা দিয়ে সাহিত্যের দূরহ পথে যাত্রা শুরু হয়েছিলো। এখনো ইংরেজি বিষয়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি কবিতা, গল্প, উপন্যাস ও প্রবন্ধ-নিবন্ধ লেখার সাথে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি। এ পর্যন্ত আমার মৌলিক সাহিত্যকর্ম হিসেবে তিনটি কবিতাগ্রন্থ, একটি উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে। পাশাপাশি অন্যান্য কবিদের বাংলাকবিতার ইংরেজি অনুবাদের কাজ করার চেষ্টা করে যাচ্ছি।
অনুপ্রেরণা: আমি আমার গবেষণা ও সাহিত্য চর্চার জন্যে আমার বাবা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ মাতা জাহানারা বেগম এবং আমার সতীর্থদের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা পেয়েছি। আমি যখন কবিতা লিখে বাবাকে দেখাতাম বাবা তখন আমার কবিতা পড়ে আমাকে দশ টাকা করে দিতেন মিষ্টি খাবারের জন্য। সেই দশ টাকা দিয়ে মিষ্টি খেতে চলে যেতাম মিষ্টির দোকানে।
সম্মাননা: চন্দ্রছাপ ম্যাঘ স্মৃতি সম্মাননা -২০১৪।
পুরস্কার: ইংরেজি নিবন্ধ প্রতিযোগিতায় পুরস্কার (কুয়েত)।
শিক্ষকতা পেশায় অর্জন: চলতি বছর জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৮-এ মাধ্যমিক স্কুল শিক্ষক হিসেবে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে মর্যাদা লাভ এবং ঢাকা বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন।
শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে অভিমত: একজন শিক্ষক হিসেবে শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আমার অভিমত হলো শিক্ষা ব্যবস্থাকে নতুন আঙ্গিকে গবেষণা ভিত্তিতে সাজানো হোক এবং প্রাথমিক বা মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের কথা ভেবে এতো অতিরিক্ত সাবজেক্ট না রেখে সাবজেক্ট সংখ্যা কমিয়ে আনা প্রয়োজন। পরীক্ষা পদ্ধতির পরিবর্তন করা দরকার। এছাড়ও শিক্ষা ব্যবস্থার আরো মান উন্নয়ন ঘটনো আবশ্যক যাতে করে শিক্ষার্থীদের সুন্দর একটা ক্যারিয়ার গঠনে সহায়ক হয় সেইদিকটা এখন বেশি জরুরি হয়ে পড়ছে বলে মনে করছি।
আদর্শ : শিক্ষক হিসেবে বৃত্তি চাওয়ার চেয়ে শিক্ষার্থীদের জীবনের ভবিষৎ যেনো সুন্দরভাবে গঠিত হয় সেই আদর্শই লালন করে আসছি এবং আমার অন্যান্য শিক্ষক সতীর্থদের জন্যে সেই পরামর্শ থাকলো। কেননা একজন শিক্ষক ছাত্রদের পঠ্যশিক্ষা প্রদানের পাশাপাশি মানবিক শিক্ষা, নীতিগত বা আদর্শগত শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে শুদ্ধ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে উৎসাহিত করবে মানবিক পৃথিবীতে এটাই কাম্য।
জীবনবোধ: জীবন হচ্ছে সুখ-দুঃখের সম্মিলন। অর্থাৎ অনুকূল ও প্রতিকূল অবস্থা নিয়েই জীবনকে অগ্রসর করে নিতে হবে প্রত্যেকটি মানুষকে। এই ঘটনাক্রমকে স্বাভাবিকভাবে মেনে নিলেই জীবনকে সহজ মনে হবে।
ব্যক্তিগত স্বপ্ন : একজন শিক্ষক হিসেবে আমার স্বপ্ন সু-সন্তানের সু-পিতা হওয়ার। ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বেঁচে থাকা, সমাজে স্ব-সম্মান নিয়ে বসবাস করা। এছাড়া আমার গবেষণালব্ধ বিষয়গুলো মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার প্রত্যয়।
বাংলাদেশ নিয়ে স্বপ্ন : ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপরেখা যেনো স্বয়ংসম্পূর্ণভাবে বাস্তবিক রূপ পায়। আমাদের স্বাধীনতা অর্জিত এই বাংলাদেশ যেনো সত্যিকার অর্থেই একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে সারাবিশে^ একনামেই

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

webnewsdesign.com

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com