মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসাহ জোগাতে এদেশের সাংবাদিকরা কাজ করেছিলেন: শহীদুল ইসলাম পাইলট

শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৬:১৭ অপরাহ্ণ |

মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসাহ জোগাতে এদেশের সাংবাদিকরা কাজ করেছিলেন: শহীদুল ইসলাম পাইলট

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট বলেছেন মুক্তিযোদ্ধারা সর্ব যুগের, সর্ব কালের দেশ ও জাতীর সর্বশ্রেষ্ঠ সন্তান।

এদের প্রতি জাতি চিরঋণী। এ ঋণ শোধ করার জন্য এদের প্রতি আমাদের করনীয় অনেক। শুধু ভাতা প্রদানই যথেষ্ট নয়। এদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আমাদের আত্মনিবেদিত থাকতে হবে।


সে সাথে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের খুঁজে বের করতে হবে। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের লালন পালন করা রাষ্ট্রের কর্তব্য। তিনি সকল বয়সের মুক্তিযোদ্ধাদের চাকরীতে অর্ন্তভুক্ত করার প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের চাকরীর ক্ষেত্রে কোন বয়সের সীমাবদ্ধতা থাকা উচিৎ নয়।

যে কোন বয়সের মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের চাকুরিতে নিয়োগ প্রদানের জন্য তিনি আহবান জানান। তিনি বলেন, অনেক মুক্তিযোদ্ধা অসহায় অবস্থায় দুর্বিসহ মানবেতর জীবনযাপন করছেন। অনেক মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি-ঘর, ভিটে-মাটি নেই, অনেক মুক্তিযোদ্ধা কর্মহীন।


এদের খুঁজে বের করে সার্বিক সাহায্য সহযোগীতা দিয়ে পূনর্বাসন করা উচিত। কারন মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যই আমরা জাতি হিসেবে মাথা তুলে দাড়াতে সক্ষম হয়েছে। এদের কারনে আমরা স্বাধীন স্বার্বভৌম রাষ্ট্র পেয়েছি।

সুতরাং এদেরকে সকল ক্ষেত্রে সুবিধা প্রদান করতে হবে। তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের যানবাহনের ভাড়া মওকুফের দাবী করেন। বিনা মূল্যে মুক্তিযোদ্ধারা যাতে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সেবা পেতে পারেন সেই ব্যবস্থা নিতে হবে সরকারকে।


সেই সাথে তিনি সঠিক ভাবে যাচাই-বাছাই করে মুক্তিযোদ্ধা তালিকা থেকে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দিয়ে বাদ পড়া প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের অর্ন্তভূক্ত করার অহবান জানান। তিনি দুঃখ করে বলেন, আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা একদিন হারিয়ে যাবে। তাদেরকে আমাদের মাঝে আর পাওয়া যাবে না। তাই তাদেরকে যথাযথ মূল্যায়ন করে স্মৃতিতে, প্রীতিতে তাদের বাঁচিয়ে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে এবং তাদের আদর্শ ও উদ্দেশ্য বুকে ধারন করে দেশ গড়ার কাজে আমদের এগিয়ে যেতে হবে।

তিনি মফস্বল সাংবাদিকদের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে এক করে বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা যেমন সারাদেশে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন সাংবাদিকরাও তেমন সারাদেশে কলম যুদ্ধ করে চালিয়েছেন। তিনি এ সময়ে বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা কম ছিলনা।

মুক্তিযোদ্ধারা দেশ মাতৃকার জন্য অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধ করেছেন আর সাংবাদিকরা সেই খবর তুলে ধরে মুক্তিযুদ্ধকে চাঙ্গা করে সারাদেশের মুক্তিযুদ্ধের খবর বিশ্ববাসীর নিকট উপস্থাপন করে তাদের সমর্থন আদায় করেছেন। কিন্তু পরিতাপের বিষয় মুক্তিযোদ্ধারা কিঞ্চিৎ স্বীকৃতি পেলেও মফস্বল সাংবাদিকরা আজও বঞ্চিত।

তিনি মফস্বল সাংবাদিকদের অধিকার প্রদানের জন্য সরকারের দৃষ্টি আর্কষণ করেন। স্বাধীনতা সংসদের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস ২০১৭ উপলক্ষে বুধবার বিকেল ৫টায় ঢাকা শাহাবাগস্থ কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীর শওকত ওসমান মিলনায়তনে ‘বিজয় দিবসের অঙ্গীকার, মধ্যম আয়ের দেশ গড়বো এবার’ শীর্ষক আলোচনা সভা, বিজয় দিবস সন্মাননা পুরস্কার বিতরণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রখ্যাত সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম পাইলট একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতা সংসদ মহান মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা ও সামাজিক-সাংস্কৃতির ধারক ও বাহক। এ সংগঠন প্রতিভাবান মানুষের অন্বেষণ করে জেনে আমি আনন্দিত। তিনি স্বাধীনতা সংসদ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধ্যবাদ জ্ঞাপন করে উপস্থিত অতিথি বৃন্দের প্রতি তিনি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট আ.ক.ম মোজাম্মেল হক বলেন, ৭ মার্চের ভাষন পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষন আর অলিখিত সর্বশ্রেষ্ঠ ভাষণ। বঙ্গবন্ধু জানতেন, মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি না হলে রাজনৈতিক মুক্তিতে মানুষের পেট ভরবে না। এ কারনেই স্বাধীনতা আমাদের শ্রেষ্ঠ অর্জন, অহংকার। তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী প্লেনে তেল পানি থাকে না, নাট বল্টু থাকে না।

ষড়যন্ত্রকারীরা প্রধান মন্ত্রীকে হত্যা করতে চায় । নির্বাচন বানচাল করে অন্য কাউকে ক্ষমতায় আনতে চায়। তারা চায় অনির্বাচিতরা ক্ষমতায় আসুক। কিন্তু তা হতে দেয়া হবে না। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। ষড়যন্ত্রকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে মোকাবেলা করতে হবে।

সংগঠনের উপদেষ্টা কেএসএনএম জহুরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং বিজ্ঞান ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া এম.পি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাউথ ইস্ট ইউনিভারর্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ.ন.ম মেশকাত উদ্দিন, অর্থ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব পীরজাদা শহীদুল হাসান, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠশিল্পী, বীর মুক্তিযোদ্ধা উমা খান, চিত্র নায়িকা নুতন, জনতা ব্যাংকের উপ-ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ফরজ আলী, প্রাইম ব্যাংকের সাবেক প্রধান ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ খান চৌধুরী, গাজিপুরের শ্রীপুর পৌরসভা মেয়র আনিসুর রহমান ও বিশিষ্ট সাংবাদিক যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ তালুকদারসহ দেশবরেণ্য ব্যক্তিবর্গ।

স্বাধীনতার ৪৬ বছরের এই প্রথম অধিকার বঞ্চিত মফস্বল সাংবাদিকদের একমাত্র সংগঠন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রখ্যাত সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম পাইলট মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার চেতনায় লালিত অরাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও বুদ্ধিদীপ্ত সংগঠন স্বাধীনতা সংসদ কর্তৃক শ্রেষ্ঠ সাংবাদিক সংগঠক হিসেবে মনোনীত হয়ে স্বাধীনতা সংসদ সন্মাননা পদকে ভূষিত হয়েছেন।

অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট সাংবাদিক আব্দুস সামাদ তালুকদারকে সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

প্রিজাইডিং অফিসারকে বিবস্ত্র করেও  বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে অপরাধীরা…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com