রাজশাহীতে অস্ত্রের মুখে বালুমহাল দখলের অভিযোগ

রাজশাহীতে অস্ত্রের মুখে বালুমহাল দখলের অভিযোগ

রবিবার, ০১ এপ্রিল ২০১৮ | ৫:৪০ অপরাহ্ণ |

রাজশাহীতে অস্ত্রের মুখে বালুমহাল দখলের অভিযোগ
রাজশাহীতে অস্ত্রের মুখে বালুমহাল দখলের অভিযোগ

অস্ত্রের মুখে সরকারি দুইটি বালুমহাল দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রাজশাহীর আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও কাটাখালি পৌরসভার মেয়র। স্থানীয় বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডার ও একাধিক নাশকতা মামলার আসামিদের দিয়ে জেলার পবা উপজেলা এলাকায় পদ্মার চরখিদিরপুর ও চরশ্যামপুর বালুমহাল দখল করে নেয়।

এ নিয়ে কাটাখালি থানায় অভিযোগ দেওয়া হলেও পুলিশ কোন পদক্ষেপ নেয়নি। পরে ১১ জনকে আসামী করে আদালতে একটি মামলা দায়ের করা হয়। এ ছাড়াও দখলদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

মামলা ও জেলা প্রশাসনে দেয়া অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় চার বছর ধরে টেন্ডারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসন থেকে ইজারা নিয়ে মেসার্স আমিন ট্রেডার্স চরখিদিরপুর ও চরশ্যামপুর বালুমহালে বালু উত্তোলন ও সরবরাহ করে আসছে। সর্বশেষ গত ফেব্রুয়ারি মাসে টেন্ডারের মাধ্যমে আগামী এক বছরের জন্য ১২০ একরের সরকারি এই দুইটি বালুমহাল ইজারা পায় প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়াও গত বছরের ইজারার মেয়াদ রয়েছে আগামী ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত।

মেসার্স আমিন ট্রেডার্সের ক্যাশিয়ার সেলিম রেজা জানান, গত ২২ মার্চ বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ১০/১২ জন যুবক বালুমহালে গিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে তার কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এ সময় তারা ওই দিনের বালু বিক্রয় ও ইজারার আদায়কৃত টোলের এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। তারা অস্ত্র ঠেকিয়ে তাদের লোকজনকে বালুমহাল থেকে তুলে দিয়ে জোরপূর্বক দখল করে নেয়। এর পর থেকে তারাই ওই দুইটি বালুমহাল নিয়ন্ত্রণ করছে। তাদের ভয়ে আমরা সেখানে যেতে পারছি না।

তিনি আরো বলেন, এ ঘটনার পর ওই দিন রাতেই কাটাখালি থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়। আবার প্রতিষ্ঠানের মালিক কয়েকবার ফোন করে ওসিকে জানান। কিন্তু পুলিশ থানায় মামলা রেকর্ড করেনি আবার দখলদারদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপও নেয়নি। ফলে বাধ্য হয়ে তিনি আদালতে মামলা করেন। গত বৃহস্পতিবার এ মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। এছাড়াও একই দিনে প্রতিষ্ঠানের মালিক জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ওই অভিযোগে কাটাখালি মেয়রের নেতৃত্ব চাঁদা দাবি ও অস্ত্র নিয়ে বালুমহাল জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ আনা হয়েছে বলে জানান সেলিম।

মামলার আসামীরা হলেন, শ্যামপুর পাহাড়িপাড়ার মৃত আব্দুল বারির ছেলে নজরুল ইসলাম বাবু, মুঞ্জুর রহমানের ছেলে মামুন, মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে মাহাবুল, শ্যামপুর মোল্লাপাড়ার মৃত জার্মান মোল্লার ছেলে রিয়াজ উদ্দীন, আমির উদ্দীনের ছেলে দুলাল উদ্দীন, মৃত আনসার আলীর ছেলে সুমন ইসলাম, মৃত ইসাহাক আলীর ছেলে নবিবুর রহমান নবি, শ্যামপুর থান্দারপাড়ার ওয়াজ নবীর ছেলে আব্দুর বারি বাদশা, চরশ্যামপুরের আব্দুল সামাদের ছেলে মনিরুল ইসলাম, আব্দুল খালেকের ছেলে বাবু ও কাটাখালির কেরু মন্ডলের ছেলে শরিফুল ইসলাম।

বালুমহালের টোল আদায়কারী শ্যামপুর এলাকার জনি ইসলাম বলেন, ‘বালুমহাল যারা দখল করতে গিয়েছিল তাদের অধিকাংশই বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডার হিসেবে এলাকায় পরিচিত। তাদের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগের রাতে শ্যামপুর স্কুল পোড়ানোসহ বাসে আগুন দেয়ার একাধিক নাশকতার মামলা রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আসামীদের মধ্যে নজরুল ইসলাম কাটাখালি পৌরসভা যুবদলের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। শাহাবুল পৌরসভা যুবদল ও মামুন পৌরসভা ছাত্রদলের সঙ্গে জড়িত ছিল। রিয়াজ উদ্দীন, মনিরুল ইসলাম ও শরিফুর ইসলাম জামায়াত শিবিরের ক্যাডার হিসেবে পরিচিত। তাদের প্রত্যেকেই নাশকতার একাধিক মামলার আসামী। এছাড়াও রিয়াজ উদ্দীন কাটাখালির সাবেক মেয়র ও জামায়াত নেতা মাজেদুর রহমানের এপিএস ছিলেন।

জনি বলেন, বিএনপি জামায়াতের এসব ক্যাডার বর্তমানে মেয়র আব্বাস আলীর ছত্রছায়ায় এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাচ্ছেন। মাস দুইয়েক আগেও তারা এই বালুমহালে গিয়ে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা আমাকে মারপিট করে মাথা ফাটিয়ে দেয়। এ নিয়ে থানায় একটি মামলা করা হয়।

এ ব্যাপারে মেয়র আব্বাস আলীর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায় নি। তবে অভিযোগ না নেয়ার কথা অস্বীকার করে কাটাখালি থানার ওসি মেহেদী হাসান বলেন, ‘ওইদিন আমি থানায় ছিলাম না। এ ছাড়া বালুমহাল দখলের বিষয়টিও আমার জানা নেই। এ নিয়ে অভিযোগ হলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

জেলা প্রশাসক এস এম আব্দুল কাদের বলেন, বালুমহালগুলো রাষ্ট্রীয় সম্পদ। এগুলো টেন্ডারের মাধ্যমে ইজারা দেয়া হয়। সেগুলো জোর করে দখল করার কোন সুযোগ নেয়। তবে চরখিদিরপুর ও চরশ্যামপুর বালুমহাল ইজারাদাদের কাছ থেকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোর করে দখল করা হয়েছে বলে একটি অভিযোগ আমরা পেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

ঠাকুরগাঁওয়ে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চিকিৎসাধীন ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com