রাজশাহীর পবা-মোহনপুর আসনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

বুধবার, ২৯ আগস্ট ২০১৮ | ৭:৩০ অপরাহ্ণ |

রাজশাহীর পবা-মোহনপুর আসনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ
রাজশাহীর পবা-মোহনপুর আসনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

রাজশাহী প্রতিনিধি: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজশাহী-৩ পবা-মোহনপুর আসনে মনোনয়ন লাভের আশায় প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির একাধিক প্রার্থীর প্রচারণায় দিধা বিভক্ত স্থানীয় নেতাকর্মীরা। আওয়ামী লীগ থেকে সুবিধাজনক অবস্থান তৈরির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদও নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন।
এদিকে জোটগতভাবে মনোনয়ন লাভের দৃঢ় বিশ্বাস নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে এখানে নিয়মিত প্রচারণা চালিয়ে আসছেন মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি শাহাবুদ্দিন বাচ্চু। আবার বিএনপি দলীয় মনোনয়ন লাভের সম্ভাবনা নিয়ে প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক রায়হানুল আলম ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনকে।
দলীয় নেতাকর্মী ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজশাহীর সবকটি আসনের মধ্যে পবা-মোহনপুর আসনটি এখন দলছুট ও বহিরাগত নেতাদের টার্গেট। রাজশাহীর অন্য আসনগুলোতে আওয়ামী লীগ-বিএনপির জনপ্রিয় প্রার্থী থাকার কারণে সকল দলের বহিরাগত বিদ্রোহী প্রার্থীদের নজর শুধু এই আসনের দিকে। প্রায় পাঁচ লাখ ভোটার অধ্যুষিত বাগমারা-মোহনপুর মিলিত আসনটি ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি দলীয় প্রার্থী বিজয় লাভ করে। পরবর্তী নির্বাচনে পবা-মোহনপুর মিলে গঠিত এ আসনটি পুনরুদ্ধার করে আওয়ামী লীগ। এসময় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা। এরপর ২০১৪ সালের নির্বাচনে মেরাজ উদ্দিন মোল্লার পরিবর্তে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি আয়েন উদ্দিন। তিনি নির্বাচিত হওয়ার কিছুদিনের মধ্যে তার ভাই স্বজনের নানামুখি কর্মকা-ে জনসমর্থন হারাতে থাকেন আয়েন উদ্দিন। তবে নির্বাচিত হওয়ার পর এলাকায় যথেষ্ঠ উন্নয়ন করতে না পারলেও তিনি ওইসব স্বজনদের কিছুটা দূরে রাখার চেষ্টাও করেন। সর্বসাধারণের সঙ্গে প্রাণ খুলে মেশার কারণে নতুনভাবে তার জনপ্রিয়তা বাড়তে শুরু করে। বর্তমানে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য সব প্রার্থীদের মধ্যে তার জনপ্রিয়তায় বেশি বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ভোটার সমর্থক ও নেতাকর্মীরা। সম্প্রতি নির্বাচনের মাঠে তার প্রচারণাই বেশি। এছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে এখানে প্রচারণার মাধ্যমে জনসমর্থন তৈরির চেষ্টা চালিয়ে আসছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ। তবে এখন পর্যন্ত তার যথেষ্ঠ জনসমর্থন তৈরি হয়নি। এছাড়াও মনোনয়ন লাভের আশায় দীর্ঘদিন থেকে নিয়মিত প্রচার-প্রচারণার মাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে সাড়া জাগিয়েছেন মহানগর জাপার সভাপতি শাহাবুদ্দিন বাচ্চু।
বিএনপি দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে পবা-মোহনপুরে বহুদিন আগে থেকেই প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে জেলা বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক রায়হানুল আলম রায়হানকে। তিনি স্থানীয় প্রার্থী হিসেবে পবা-মোহনপুরে খুব পরিচিত মুখ। তৃণমূল পর্যায়ের ভোটার সমর্থকদের কাছে তিনি জনপ্রিয় নেতা। এদিকে খুব কম সময়ের প্রচারণায় ভালো জনপ্রিয়তার সৃষ্টি করেছেন রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন। তিনি অনেক আগে থেকে এ আসনে প্রচারণা না চালালেও বছর কয়েক ধরে প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জামায়াতের অনেক প্রার্থী মনোনয়ন চাইবেন বলে আলোচনা শোনা গেলেও এখন পর্যন্ত তাদের মাঠে নামতে দেখা যায়নি।
স্থানীয় নেতা হিসেবে মন্তব্য জানতে চাইলে কেশরহাট পৌর যুবদলের যুগ্মআহবায়ক মশিউর রহমান বলেন, শফিকুল হক মিলন একজন কর্মীবান্ধব নেতা। তিনি প্রায় দশ বছর ধরে পবা-মোহনপুরের মাটি ও মানুষের সাথে মিশে আছেন। সকল সামাজিক ও রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে সরব উপস্থিতে তিনি জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। তাকে বিএনপি দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয়া হলে বিপুল ভোটে পাশ করবেন বলে জানান এ নেতা।
আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মাঠের অবস্থান জানতে চাইলে মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রুস্তম আলী প্রামাণিক বলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন নির্বাচনী এলাকায় যথেষ্ঠ উন্নয়ন করেছেন। তার দায়িত্ব পালনকালে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি এমন জায়গা নেই। সবচেয়ে বড় কথা হলো আয়েন উদ্দিন এমপি হলেও সর্বস্তরের জনসাধারণের সাথে মিশেছেন সাধারণ মানুষ হিসেবে। এজন্য তার জনপ্রিয়তাই সর্বাধিক। অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান প্রচারণাও চালিয়ে আসছেন। কিন্তু আওয়ামী লীগের মূল ¯্রােতের বাইরের নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচারণার কারণে ভালো অবস্থান তৈরি করতে পারেন নি। এজন্য আয়েন উদ্দিন আবারো এ আসনের জন্য এমপি পদপ্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে বিজয় লাভ করবেন বলে মনে করেন তিনি।

ছবির ক্যাপশন: বামে থেকে সাংসদ আয়েন উদ্দিন, জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, রাজাহী মহানগর বিএনপির সম্পাদক অ্যাড. শফিকুল হক মিলন, জাতীয় পার্টির রাজশাহী মহানগর সভাপতি শাহাবুদ্দিন বাচ্চু, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক রায়হানুল আলম রায়হান।

webnewsdesign.com

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

জিংক ধান বিস্তারে কৃষি অফিসারদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত…

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com