প্রাইভেট ক্লিনিকে ছিলেন চিকিৎসক

লক্ষ্মীপুরে চিকিৎসার অবহেলায় রোগীর মৃত্যু

মঙ্গলবার, ২৯ জানুয়ারি ২০১৯ | ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ |

লক্ষ্মীপুরে চিকিৎসার অবহেলায় রোগীর মৃত্যু
লক্ষ্মীপুরে চিকিৎসার অবহেলায় রোগীর মৃত্যু

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসার অবহেলায় মো. বাবুল হোসেন নামের এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (২৮ জানুয়ারী) দুপুর ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই সময়ে সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক (কনসালটেন্ট কার্ডিওলোজি) ডা. ভবানী প্রসাদ রায় হাসপাতালে ছিলেননা।

তিনি প্রাইভেট ক্লিনিকে ব্যস্ত ছিলেন নিহত রোগীর স্বজনের এমন অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে বাংলাদেশ প্রতিদিন। একই সঙ্গে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা অন্যান্য রোগীরাও ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে প্রাইভেট ক্লিনিকে যেতে প্রভাবিত করেন বলে অভিযোগ তুলেন।

দুপুর দেড়টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, স্বজন হারিয়ে আহাজারী করছেন নিহত এক রোগীর স্বজনরা। তাদের কান্নায় হাসপাতাল প্রাঙ্গনের আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে।

জানা যায়, বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে পৌর শহরের ১ নং ওয়ার্ডের সাহাপুর এলাকার কালামিয়ার পুত্র মো. বাবুল হোসেন হঠাৎ তার বুকে ব্যাথা অনুভব হলে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ যথা সময়ে চিকিৎসা না করে সময়ক্ষেপন করেন বলে স্বজনরা অভিযোগ করেন। এসময় ওই রোগীকে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. সালাহ উদ্দিন শরীফকে দেখানো হয়।

তিনি রোগীটিকে হার্টের ডা. ভবানী প্রসাদের কাছে প্রেরণ করেন। ওই সময়ে ভবানী প্রসাদের চেম্বারে গিয়ে তাকে পাননি রোগীর স্বজনরা। এক পর্যায়ে তার ব্যবহৃত মুঠোফোনে ফোন দিলে ফোনটি রিসিভ করে এক বার নোয়াখালী ও আরেকবার সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ব্যস্ত রয়েছেন বলে জানান। পরে সিভিল সার্জনকে ফোন দেওয়ার পর কিছুক্ষন পর ওই চিকিৎসক হাসপাতালে ছুটে আসেন। কিন্তু এর আগেই রোগী মারা যান। এতে করে চিকিৎসা অবহেলায় ওই রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে গনমাধ্যমকর্মীদের কাছে অভিযোগ করেন স্বজনরা। এসময় হাসপাতালের আশে পাশের লোকজন ও স্বজনরা উত্তপ্ত হয়ে উঠেন। পরে খবর পেয়ে শহর পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা হাসপাতাল প্রাঙ্গণে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এসময় জানতে চাইলে অভিযুক্ত চিকিৎসক ডা. ভবানী প্রসাদ রায় বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ব্যাক্তিগত কাজে ১০ থেকে ১৫ মিনিটের জন্য হাসপাতালের বাইরে গেছেন তিনি। তবে রোগীর অবস্থা খারাপ থাকায় মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর সঠিক ব্যবস্থাপত্র দিয়েছেন বলে তিনি জানান।

এদিকে ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অন্যান্য সেবা গ্রহিতারাও অভিযোগ করেন, তিনি তার প্রাইভেট ক্লিনিকে (শুভ হার্ট, মেডিসিন এন্ড কনসালটেশন সেন্টার) যেতে রোগীদের প্রভাবিত করেন। ঘটনার সময়েও তিনি প্রাইভেট ক্লিনিকে ছিলেন বলে অভিযোগ উঠে।
এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওইদিনেই অর্থাৎ সোমবার (২৮ জানুয়ারী) দুপুর ১ টা ৫৭ মিনিটে তার প্রাইভেট ক্লিনিকে গিয়ে দেখা যায় ওই দিন প্রাইভেট ক্লিনিকে তিনি যেসব রোগী দেখেছেন সেসব কাগজপত্র (ব্যবস্থাপত্র) কাটা ছেঁড়া করতে ব্যাস্ত রয়েছেন তিনি। যা ক্যামরায় ধারণ করা হয়। এসময় তিনি সাংবাদিকদের উপস্থিতি দেখে তা সরিয়ে পেলেন। কি কাগজপত্র সরালেন এবং সরকারি হাসপাতালে না থেকে এ সময়ে প্রাইভেট ক্লিনিকে কি করছেন জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর দিতে পারেননি। এক পর্যায়ে কিছু না বলেই বের হয়ে দৌড়ে পালিয়ে যান ওই চিকিৎসক।

এদিকে চিকিৎসা অবহেলায় রোগী মৃত্যুর বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে সিভিল সার্জন ডা. মোস্তফা খালেদ আহমদ দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, কোন মৃত্যুই আমাদের কাম্য নয়, ঘটনার সময়ে দায়িত্বরত চিকিৎসককে খুঁজে পাওয়া যায়নি সঠিক। দায়িত্ব অবহেলায় রোগীর মৃত্যু হলে দায়ী ব্যাক্তির বিরুদ্ধে তদন্ত করে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান সিভিল সার্জন।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com