শিশুর পরে মায়েরও নদীতে ঝাঁপ

মঙ্গলবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৮:৫৫ অপরাহ্ণ |

শিশুর পরে মায়েরও নদীতে ঝাঁপ
ফাইল ছবি

শিশু সন্তান চলন্ত লঞ্চ থেকে নদীতে পড়ে গেছে। এমনটা দেখে মা-ও ঝাঁপিয়ে পড়লেন। শেষ পর্যন্ত এই ঘটনার একদিন পর মায়ের লাশের সন্ধান পাওয়া গেলেও এখনো নিখোঁজ আড়াই মাসের শিশু।

এর আগে সোমবার বিকেলে চাঁদপুরের মতলব উত্তরের মেঘনার ষাটনল এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

webnewsdesign.com

আজ মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান, দুপুরে পাশের জেলা মুন্সিগঞ্জের দক্ষিণ চরমশু কাউদিয়ার চরে হতভাগী মায়ের লাশের সন্ধান পান এলাকাবাসী। পরে পুলিশ ও প্রশাসনের মাধ্যমে পরিবারের সদস্যদের কাছে কোহিনুর হাসান ইভা নামে ওই নারীর লাশ হস্তান্তর করা হয়।

সোমবার জনৈক আক্তার হোসেন ৯৯৯ নাম্বারে কল দিয়ে জানান, রাজধানীর সদরঘাট থেকে চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা এমভি ইমাম হাসান-২ যাত্রীবাহী লঞ্চ ষাটনল এলাকায় পৌঁছালে প্রথমে একশিশু নদীতে পড়ে যায়। এমনটা দেখে তার মা-ও নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

এমন দৃশ্য দেখে তিনি অনেককেই বলেন। কিন্তু কেউ আমলে নেইনি। পরে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে যাত্রী আক্তার হোসেন ৯৯৯ নাম্বারে সাহায্যের জন্য কল করেন। এর প্রেক্ষিতে চাঁদপুর থেকে ডুবুরি নিয়ে ফায়ারসার্ভিসের একটি দল মতলব উত্তরের ষাটনলে ছুটে যায়। এসময় সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তারও যোগ দেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজে ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয়বর্ষের ছাত্র আক্তার হোসেন। জেলার সদর উপজেলার দালালবাজারে তার বাড়ি। বাবার নাম রুহুল আমিন। গতকাল সোমবার রাতে আক্তার হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ওই দিন দুপুর দেড়টায় রাজধানীর সদরঘাট থেকে এমভি ইমাম হাসান-২ চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা করে। লঞ্চটি দেড় ঘণ্টা চলার পর মেঘনার ষাটনল এলাকায় পৌঁছালে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

তিনি আরো জানান, মানবিক দিক বিবেচনা করেই তিনি ৯৯৯ নাম্বারে কল দিয়ে সহযোগিতা চান।

আক্তার হোসেন জানান, তিনি গাজীপুর সেনানিবাসে এমওসিডি বিভাগের একটি নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার পর রাজধানীর সদরঘাট দিয়ে লঞ্চযোগে চাঁদপুর হয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। তার চোখের সামনে এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন তিনি।

এদিকে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়া মা ও তার সন্তানের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। তাদের গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের পশ্চিম দেওকোট এলাকায় হলেও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে থাকতেন। কোহিনুর হাসান ইভা নামে ওই নারীর স্বামী হচ্ছেন জিয়াউর রহমান। তিনি বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।

তবে তাদের আড়াই মাসের নিখোঁজ শিশুর এখনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। কি কারণে ও নারী শিশুকে নিয়ে লঞ্চে উঠলেন, এই নিয়ে পরিবারের কেউ মুখ খুলছেন না।

মতলব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান, উপজেলার মেঘনা নদী ছাড়াও পাশের মুন্সিগঞ্জ জেলার মেঘনা নদীতে হতভাগা শিশুর সন্ধানে ফায়ারসার্ভিসের ডুবুরি ও নৌপুলিশের সদস্যরা কাজ করছেন।

আপনার মুল্যবান মতামত দিন......

comments

প্রধান কার্যালয়: শিমুল লজ, ১২/চ/এ/২/৪ (২য় তলা), রোড নং ৪, শেরেবাংলা নগর,শ্যামলী,ঢাকা‌.
বার্তা বিভাগ-01763234375 অথবা 01673974507, ইমেইল- sangbadgallery7@gmail.com

আঞ্চলিক কার্যালয়: বঙ্গবন্ধু সড়ক, আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন, বাসস্ট্যান্ড, ঠাকুরগাঁও-৫১০০

2012-2016 কপি রাইট আইন অনুযায়ী সংবাদ-গ্যালারি.কম এর কোন সংবাদ ছবি ভিডিও কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথায় প্রকাশ করা আইনত অপরাধ

Development by: webnewsdesign.com